মুকুল-শুভেন্দু গ্রেফতার নয় কেন? সিবিআই-এর বিরুদ্ধে সুর চড়ালেন অধীর

কলকাতা, ১৭ মেঃ নারদ কাণ্ডের তদন্ত মামলায় রাজ্যের দুই মন্ত্রী, তৃণমূল বিধায়ক মদন মিত্র ও কলকাতার প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়কে গ্রেফতার করেছে সিবিআই। বঙ্গ রাজনীতির চার এই ঝ্যৌজন হেভিওয়েট নেতার গ্রেফতারি নিয়ে সিবিআই-এর বিরুদ্ধে মুখ খুললেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী। নারদ কাণ্ডে কেন বিজেপি নেব ও 9 লরি ঢ13মk( kmn 6তা শুভেন্দু অধিকারী ও মুকুল রায়কে গ্রেফতার করা হল না, তা নিয়ে কার্যত সুর চড়ালেন অধীর।

নারদ কাণ্ডে গ্রেফতারি প্রসঙ্গে অধীর বলেন, “সিবিআই চারজনকে গ্রেফতার করেছে। চারজনই বাংলার রাজনীতিক। রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার বাংলার যেন কেউ না হয়। কাউকে ধরব, কাউকে ছাড়ব, এই নীতি সিবিআই গ্রহণ করতে পারে না”।

উল্লেখ্য, নারদ কাণ্ডে মুকুল রায় ও শুভেন্দু অধিকারীরও নাম জড়িয়েছে। তাঁদের কেন গ্রেফতার করা হল না, তা নিয়ে নাম না করে সুর চড়ালেন অধীর। অধীর চৌধুরী আরও বলেন, “যাদের গ্রেফতার করা হয়েছে, করোনা আবহে তাঁদের কীভাবে সুরক্ষা দেওয়া যাবে, সে নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে আমার। নারদ কাণ্ড পরিচিত দুর্নীতির ঘটনা। কিন্তু, এটা জটিল সময়। সারা বাংলা করোনা আবহে আক্রান্ত। মানুষ দিশেহারা। এই অবস্থায় গ্রেফতার করা কি সমীচিন? পরেও তো গ্রেফতার করা যেতে পারত”।

নারদ কাণ্ডে গ্রেফতারি প্রসঙ্গে অধীর বলেন, “সিবিআই চারজনকে গ্রেফতার করেছে। চারজনই বাংলার রাজনীতিক। রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার বাংলার যেন কেউ না হয়। কাউকে ধরব, কাউকে ছাড়ব, এই নীতি সিবিআই গ্রহণ করতে পারে না”।

উল্লেখ্য, নারদ কাণ্ডে মুকুল রায় ও শুভেন্দু অধিকারীরও নাম জড়িয়েছে। তাঁদের কেন গ্রেফতার করা হল না, তা নিয়ে নাম না করে সুর চড়ালেন অধীর। অধীর চৌধুরী আরও বলেন, “যাদের গ্রেফতার করা হয়েছে, করোনা আবহে তাঁদের কীভাবে সুরক্ষা দেওয়া যাবে, সে নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে আমার। নারদ কাণ্ড পরিচিত দুর্নীতির ঘটনা। কিন্তু, এটা জটিল সময়। সারা বাংলা করোনা আবহে আক্রান্ত। মানুষ দিশেহারা। এই অবস্থায় গ্রেফতার করা কি সমীচিন? পরেও তো গ্রেফতার করা যেতে পারত”।