বাংলায় অষ্টম দফায় ভোট, কলকাতায় ভোট ২৬ ও ২৯ এপ্রিল

ইউবিজি নিউজ ডেস্ক : শুক্রবার পশ্চিমবঙ্গ, তামিলনাড়ু, কেরল, অসম এবং পুদুচেরি বিধানসভা ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণা করছে নির্বাচন কমিশন।

পশ্চিমবঙ্গে ২৯৪, অসমে ১২৬, কেরলে ১৪০, তামিলনাড়ুতে ২৩৪ এবং পুদুচেরিতে ৩০টি আসনে ভোট হবে। করোনাভাইরাস মহামারির আবহে বিহারের পর এই নিয়ে দ্বিতীয় বার কোনো বিধানসভা ভোট অনুষ্ঠিত হতে চলেছে। স্বাভাবিক ভাবেই করোনা মোকাবিলায় এ বারের ভোটে জুড়েছে বেশ কয়েকটি নতুন বৈশিষ্ট্য।

কমিশন যা বলল…

***** অষ্টম দফায় ৩৫ কেন্দ্রে ভোট। ভোটগ্রহণ ২৯ এপ্রিল। মালদার একটি অংশ, মুর্শিদাবাদের একটি অংশ, বীরভূম, কলকাতা উত্তর।

***** সপ্তম দফায় ভোট ৩৬টি কেন্দ্রে। ভোটগ্রহণ ২৬ এপ্রিল। মালদার একটি অংশ, মুর্শিদাবাদের একটি অংশ, পশ্চিম বর্ধমান, কলকাতা দক্ষিণ, দক্ষিণ দিনাজপুর।

***** ষষ্ঠ দফায় ৪৩টি কেন্দ্রে ভোট। ভোটগ্রহণ ২২ এপ্রিল। উত্তর ২৪ পরগণার, নদিয়ার একটি অংশ, পূর্ব বর্ধমানের একটি অংশ, উত্তর দিনাজপুর।

***** পঞ্চম দফার ভোট ১৭ এপ্রিল। এই দফায় ভোট উত্তর ২৪ পরগণার একটি অংশ, নদিয়ার একটি অংশ। পূর্ব বর্ধমানের একটি অংশ, দার্জিলিং, কালিম্পং এবং জলপাইগুড়ি।

***** চতুর্থ দফায় ভোট ৪৪টি কেন্দ্রে। ভোটগ্রহণ ১০ এপ্রিল। হাওড়ার একটি অংশ, হুগলির একটি অংশ, দক্ষিণ ২৪ পরগণার একটি অংশ, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার।

***** তৃতীয় দফার ভোট ৬ এপ্রিল। ভোটগ্রহণ ৩১ কেন্দ্রে।

***** বাঁকুড়ার একটি অংশ, পশ্চিম মেদিনীপুরের একটি অংশ, পূর্ব মেদিনীপুরের একটি অংশ, দক্ষিণ ২৪ পরগণার একটি অংশে ভোট ১ এপ্রিল। এখানেও ৩০ কেন্দ্রে ভোট।

***** পুরুলিয়া, ঝাড়গ্রাম, বাঁকুড়া, পশ্চিম মেদিনীপুরের একটি অংশ এবং পূর্ব মেদিনীপুরের একটি অংশে ভোট ২৭ মার্চ। সব মিলিয়ে ৩০ কেন্দ্রে ভোট।

**** রাজ্যে ভোট ৮ দফায়।

***** পুদুচেরিতে ভোট এক দফায়— ৬ এপ্রিল।

**** তামিলনাড়ুতে ভোট এক দফায়— ৬ এপ্রিল।

***** কেরলে ভোট এক দফায় — ৬ এপ্রিল।

**** অসমে ভোট ৩ দফায়। ২৭ মার্চ, ১ এপ্রিল এবং ৬ এপ্রিল।

***** সব জায়গায় ভোটগণনা ২ মে।

***** শুরু হচ্ছে বিধানসভা ভোটের নির্ঘণ্টের ঘোষণা।

***** ৩০ এপ্রিল শেষ হচ্ছে সুনীল অরোরার কার্যকাল।

***** ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গেই আদর্শ নির্বাচনী আচরণবিধি ঘোষণা হয়ে যাবে।

***** ভোটেকেন্দ্র থাকবে স্যানিটাইজার, মাস্ক, সাবান।

**** ভোটের দিনের নির্ঘণ্টের ক্ষেত্রে স্থানীয় উত্‍সবের কথা মাথায় রাখা হয়েছে। বিভিন্ন পরীক্ষার সূচির ওপরেও নজর রাখতে হয়েছে।

***** পশ্চিমবঙ্গের আয়ব্যায় পর্যবেক্ষক বি মুরলী কুমার।

***** এ বারের ভোটে পশ্চিমবঙ্গে দু’জন পুলিশ পর্যবেক্ষক। মৃণালকান্তি দাস এবং বিবেক দাস।

***** অনলাইনে মনোনয়ন জমা দিতে পারবেন প্রার্থীরা।

***** রোড শো’র ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৫টি গাড়ির অনুমতি।

***** বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রচার করলে একসঙ্গে ৫ জনের বেশি মানুষ একত্রিত হতে পারবেন না।

***** সংবেদনশীল ভোটকেন্দ্রে পর্যাপ্ত পরিমাণে কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকবে। ইতিমধ্যে সব রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে বাহিনী পাঠানো হচ্ছে।

***** ভোটের সময়ে এক ঘণ্টা বৃদ্ধি।

***** ভোটকেন্দ্রে বৃদ্ধি মানে ভোটকর্মীর সংখ্যাতেও বৃদ্ধি, বলল কমিশন।

***** ৭৭ হাজার ৪১৩টি কেন্দ্র থেকে বেড়ে এ বার পশ্চিমবঙ্গে ১ লক্ষ ১ হাজার ৯১৬টি ভোটকেন্দ্র। ২০১৬-এর থেকে ভোটকেন্দ্র বৃদ্ধি ৩১.৬৫%।

***** দেড় হাজারের বদলে এক একটি ভোটকেন্দ্র সর্বোচ্চ ১ হাজার জন ঢুকবেন। ভোটকেন্দ্র থাকবে এক তলায়।

***** ১৮ কোটির বেশি মানুষ ভোট দেবেন এ বার। ২ লক্ষ ৭০ হাজারেরও বেশি ভোটকেন্দ্র থাকছে।

**** পশ্চিমবঙ্গে ২৯৪ আসন। এসসির জন্য সংরক্ষিত ৬৮টি আসন, এসটির জন্য ১৬টি আসন।

***** অসমে বিধানসভার মেয়াদ শেষ ৩১ মে, তামিলনাড়ুতে মেয়াদ শেষ ২৪ মে, পশ্চিমবঙ্গে মেয়াদ শেষ ৩০ মে, কেরলে মেয়াদ শেষ ১ জুন, পুদুচেরিতে ৮ জুন।

***** জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারিতে ভোটমুখী চার রাজ্য এবং পুদুচেরিতে সফর করেছিল নির্বাচন কমিশন।

***** করোনা আবহে ভোটারদের স্বাস্থ্য বিশেষ নজর দিতে হচ্ছে।

***** ভীষণ কঠিন পরিস্থিতির মধ্যেই বিহারে ভোট সফল ভাবে হয়েছে। ভোটের হার ছিল বিহারের ক্ষেত্রে গত কয়েক বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ।

***** স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিহারের মানুষ এই নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ করেছেন।

***** ভারতীয় নির্বাচন কমিশনের কাছে সব থেকে চ্যালেঞ্জের ছিল বিহার নির্বাচন।

***** পরিস্থিতি কঠিন থাকলেও ২০২০ সালে বিভিন্ন গণতান্ত্রিক দেশ অতিমারির মধ্যে সফল ভাবে নির্বাচন করিয়েছে।