‘ঘরওয়াপসি’ মুকুলের, প্রত্যাবর্তনে খুশি তৃণমূল নেতা কর্মীরা

ঘরের ছেলে ঘরে ফিরে আসায় খুশী কাঁচরাপাড়ার (kachrapara) সাধারণ মানুষ থেকে তৃণমূল নেতা কর্মীরা। মুকুল রায় বিজেপি থেকে তৃণমূল কংগ্রেসে ফেরায় খুশির আনন্দ কাঁচরাপাড়া তে।কাঁচরাপাড়া ঘটক রোডে মুকুল (mukul roy) রায়ের বাড়ির প্রতিবেশীরা আনন্দে আত্মহারা হতে দেখা গেল। সেই সঙ্গে কাঁচড়াপরা তে চলছে মিষ্টিমুখ করার পালা।

মুকুল রায়ের প্রত্যাবর্তনকে (come back) স্বাগত জানাল কাঁচরাপাড়ার বাসিন্দারা সহ তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা কর্মীরা। বেশ কিছু দিন ধরেই বিজেপির সর্ব ভারতীয় সহ সভাপতি মুকুল রায় তৃণমূলে (tmc) ফিরছেন বলে রাজনৈতিক মহলে জোর জল্পনা চলছিল। সেই জল্পনাকে সত্যি করে মুকুল রায় ও তার পুত্র চলে গেলেন তৃণমূল কংগ্রেসে। মুকুল রায়ের তৃণমূলে ফিরে আসার খবরে খুশির হওয়া বইতে দেখা গেল কাঁচারাপাড়ার তৃণমূল কর্মী ও ঘটক রোডের বাসিন্দাদের মধ্যে। এদিন কাঁচরাপারার মুকুল রায়ের প্রতিবেশী বলেন “আমরা খুব খুশি যে মুকুল রায় এবং তার পুত্র শুভ্রাংশু তৃণমূল দলে ফিরছেন। ।”

৩ বছর ৯ মাস। ২০১৭ সালে তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক থাকাকালীন দল ছেড়েছিলেন মুকুল রায়। তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতিষ্ঠা লগ্ন থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত মুকুল রায়। তৃণমূল সুপ্রিমোর পরে তিনিই ছিলেন দলের সেকেন্ড ইন কমান্ড। মুকুল রায়কে রাজ্যসভার (Rajyasabha) সদস্য করেছিল তৃণমূল। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রশাসনিক দিকটা দেখতেন, দলের ভার ছেড়েছিলেন মুকুলের শক্ত কাঁধে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্যই রাজনীতির সর্বভারতীয়স্তরে আলাদা করে জায়গা করে নিয়েছিলেন মুকুল রায়। রেলমন্ত্রক, জাহাজমন্ত্রকের মতো গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রকের ভার সামলেছিলেন তিনি।

তবে ২০১৭ সালে হঠাৎই ছন্দপতন। তৃণমূল ছাড়লেন মুকুল রায়। বড়সড় ধাক্কা নেমে এল জোড়াফুল শিবিরে। এরপর মুকুল রায়ের হাত ধরেই ঘর ভাঙতে শুরু করল তৃণমূলের। একে একে বহু তৃণমূল নেতা-কর্মী নাম লেখালেন গেরুয়া শিবিরে। ২০১৯ সালের লোকসভা ভোটে রাজ্যে বিরাট সাফল্য পায় বিজেপি (Bjp) । লোকসভার ১৯টি আসন জিতে নেয় পদ্ম শিবির। রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, রাজ্যে গেরুয়া দলের এই উত্থানের পিছনে মুকুল রায়ের বড়সড় ভূমিকা ছিল।

গত কয়েকদিন ধরেই মুকুলের তৃণমূলে ফেরা নিয়ে জল্পা তুঙ্গে ওঠে। শেষমেশ আজই সেই জল্পনা বাস্তবের রূপ নিল। এদিন বিকেলে পুত্র শুভ্রাংশু রায়কে সঙ্গে নিয়ে তৃণমূল ভবনে পৌঁছোন মুকুল রায়। জানা গিয়েছে, এদিন তৃণমূল ভবনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দেখেই এগিয়ে যান পিতা-পুত্র। ‘ভুল হয়ে গিয়েছে’, তৃণমূলনেত্রীকে দেখেই বলেন মুকুল রায়।