করোনা মোকাবিলায় আগামিকাল থেকে রাজ্য জুড়ে দু-সপ্তাহের পূর্ণাঙ্গ লকডাউন ঘোষণা রাজ্য সরকারের, শুধু খোলা থাকবে জরুরি পরিষেবা, কি কি জরুরি পরিষেবা খোলা থাকছে দেখে নিন এক নজরে

কলকাতা, ১৫ মেঃ  করোনা মোকাবিলায় জন্য লকডাউন ঘোষণা রাজ্য সরকারের। রবিবার সকাল ৬ টা থেকে ৩০ মে পর্যন্ত সকল স্কুল, কলেজ, অঙ্গনওয়াড়ি প্রতিষ্ঠান বন্ধ।

সব সরকারি, বেসরকারি অফিস ও প্রতিষ্ঠান (জরুরি পরিষেবা ব্যতীত) বন্ধ থাকবে। বন্ধ থাকবে , শপিং, রেস্টুরেন্ট, সুইমিং পুল, বিউটি পার্লার। খুচরো দোকান, সবজি-ফল-মুদিখানা-দুধ ও মাংসের দোকান সকাল ৭ টা থেকে ১০ টা পর্যন্ত খোলা থাকবে।

মিষ্টির দোকান সকাল ১০টা থেকে ৫টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। বিধিনিষেধ পরিবহনেও। লোকাল ট্রেন, মেট্রো, বাস, লঞ্চ পরিষেবা বন্ধ। বন্ধ পার্ক, চিড়িয়াখানাও।

রাজ্যের অন্দরে খাদ্যসামগ্রীর ট্রাক ছাড়া অন্যান্য ট্রাক চলাচল বন্ধ। রাত ৯টা থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত বাইরে বেরোনো যাবে না। বিয়েবাড়িতে ৫০ জনের বেশি নয়। ব্যাঙ্ক খোলা থাকবে সকাল ১০টা থেকে ২টো।

রাজ্য সরকারের ঘোষণাঃ

 ১। সমস্ত স্কুল, কলেজ, পলিটেকনিক, আইটিআই, অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্র এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে।

২। সমস্ত সরকারি ও বেসরকারি অফিস বন্ধ থাকবে। কেবল মাত্র জরুরি পরিষেবা সংক্রান্ত দফতর খোলা থাকবে। যেমন, স্বাস্থ্য পরিষেবা, বিদ্যুত্‍, সংবাদমাধ্যম, পুরসভা, দমকল, পশু স্বাস্থ্য, আদালত, সমাজ কল্যাণ, টেলিকম, বিপর্যয় মোকাবিলা এবং সত্‍কারের কাজ।

৩। শপিং কমপ্লেক্স, মল, বিউটি পার্লার, জিম, সুইমিং পুল, সিনেমা হল সমস্ত বন্ধ থাকবে।

৪। খুচরো ও পাইকারি দোকান, বাজার দোকান সকাল ৭ টা থেকে ১০ টা পর্যন্ত খোলা থাকবে।

৫। মিষ্টির দোকান সকাল ১০ টা থেকে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত খোলা থাকবে।

৬। ওষুধের দোকান এবং চশমার দোকান খোলা থাকবে।

৭। পার্ক, চিড়িয়াখানা, অভয়ারণ্য সবই বন্ধ থাকবে।

৮। রাজ্যের মধ্যে সমস্ত লোকাল ট্রেন, বাস, মেট্রো রেল, লঞ্চ ও ফেরি সার্ভিস বন্ধ থাকবে। শুধু ইমার্জেন্সি পরিষেবার কর্মীদের জন্য কিছু পরিষেবা চালু থাকবে।

৯। বেসরকারি গাড়ি, ট্যাক্সি, অটো রিকশ চলাচল বন্ধ থাকবে। শুধু মাত্র হাসপাতাল, সংবাদমাধ্যমের অফিস, বিমানবন্দরে যাওয়ার জন্য গাড়ি চলতে পারবে।

১০। সমস্ত আন্তঃরাজ্য ট্রাক চলাচল ও পণ্য সরবরাহ বন্ধ থাকবে। কেবল মাত্র মেডিকেল সাপ্লাই, জ্বালানি, অক্সিজেন সাপ্লাই এবং দুধ, ডিম মাংস সরবরাহের জন্য ট্রাক বা পণ্য পরিবহণ করা যাবে।

১১। সমস্ত রকম রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক, সামাজিক জমায়েত বন্ধ থাকবে।

১২। সমস্ত কলকারাখানা ও উত্‍পাদন কেন্দ্র বন্ধ থাকবে। শুধু খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ শিল্প, ডিম, দুধ, মাংস প্রক্রিয়াকরণ কেন্দ্র, জরুরি সামগ্রী উত্‍পাদন প্রতিষ্ঠান খোলা থাকবে।

১৩। চা বাগানে কাজ চলতে পারে। যে হেতু বহু শ্রমিকের জীবিকা এর সঙ্গে যুক্ত। তবে প্রতি শিফটে ৫০ শতাংশ কর্মী কাজ করতে পারবেন।

১৪। জুট মিল গুলি ৩০ শতাংশ কর্মী নিয়ে কাজ করতে পারে।

১৫। ই-কমার্স ও হোম ডেলিভারি চালু থাকবে।

১৬। ব্যাঙ্ক পরিষেবা খোলা থাকবে। তবে সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ২ টো পর্যন্ত খোলা থাকবে।

১৭। পেট্রল পাম্প, এলপিজি সার্ভিস খোলা থাকবে।

১৮। সংবাদমাধ্যম খোলা থাকবে।

১৯। বিয়ের অনুষ্ঠান হতে পারবে। কিন্তু বিবাহ বাসরে ৫০ জনের বেশি থাকতে পারবে না।

২০। সত্‍কারে ২০ জনের বেশি যেন না থাকে।

২১। রাত ৯ টাকা থেকে সকাল ৫ টা পর্যন্ত বিশেষত সব রকম বাইরের মুভমেন্ট বন্ধ থাকবে। একমাত্র জরুরি পরিষেবা খোলা থাকবে। কারণ গত বার দেখা গিয়েছিল, রাতে অনেক মানুষ বেরোচ্ছে হুল্লোড়ের জন্য।