Ad
রাজ্য

‘টেলিফোনে ক্লাস’ শুরু হচ্ছে ষষ্ঠ থেকে অষ্টম শ্রেণী পর্যন্ত, ঘোষণা শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর

এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর রয়েছে

ইউবিজি নিউজ : করোনা পরিস্থিতিকে মাথায় রেখে গত বছরই রাজ্য স্কুল শিক্ষা দপ্তর নবম ও দশম শ্রেণির ছাত্রছাত্রীদের জন্য ‘টেলিফোনে ক্লাস’ শুরু করেছিল। ইতিবাচক ফলাফল পাওয়ার পর এ বছর আরও এক ধাপ এগোল এই প্রকল্প নিয়ে রাজ্য সরকার।

শনিবার শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু(Bratya Basu) ঘোষণা করেন, “নবম ও দশম শ্রেণীর ছাত্রছাত্রীদের জন্য গত বছর চালু করা হয়েছিল এই প্রকল্প। আমরা ষষ্ঠ থেকে অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রছাত্রীদের জন্য এই প্রকল্প চালু করছি। ২ তারিখ থেকে এই প্রকল্প শুরু করা হবে।”

Ad

কী ভাবে এই প্রকল্প চলবে সে বিষয়ে ব্যাখ্যা করেছেন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু(Bratya Basu)।

এই ক্লাস চালানো হবে দুটি পর্যায়ে। শিক্ষামন্ত্রী বলেন “রবিবার বাদে সকাল ১০.৩০ থেকে বেলা দেড়টা পর্যন্ত ষষ্ঠ থেকে অষ্টম শ্রেণীর জন্য ক্লাস হবে। দুপুর দেড়টা থেকে বিকেল সাড়ে চারটে পর্যন্ত নবম-দশম শ্রেণির ছাত্রছাত্রীদের জন্য এই ব্যবস্থা থাকবে।” সে ক্ষেত্রে পুরো ব্যবস্থাটিকে পরিচালনার জন্য ১৩২৪জন শিক্ষক-শিক্ষিকাদের নিয়ে একটি দল গঠন করা হয়েছে।

শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু এ প্রসঙ্গে বলেন ” ইংলিশ মাধ্যমের ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য এই সুবিধার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।” ১৮০০১২৩৮২৩ এই টোল-ফ্রী নম্বরে ফোন করতে হবে ছাত্র-ছাত্রীদের টেলিফোনে ক্লাসের জন্য। তবে সে ক্ষেত্রে বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে টেলিফোনের ক্লাসের মাধ্যমে মূলত ছাত্র-ছাত্রীদের যে সন্দেহ গুলি যে প্রশ্নগুলো তৈরি হবে সেই প্রশ্নের উত্তর পেতে পারেন। শনিবার এমনটাই বলেন শিক্ষা মন্ত্রী।

সে ক্ষেত্রে ল্যাবরটরি সংক্রান্ত কোন ক্লাস নেওয়া সম্ভব হলেও শিক্ষক-শিক্ষিকাদের তরফে যতটুকু সম্ভব ততটুকু পরামর্শ দেওয়া হবে বলেও এদিন জানান শিক্ষামন্ত্রী। এদিন শিক্ষা মন্ত্রী কেন্দ্রীয় শিক্ষা নীতি-নিয়ম কেন্দ্রকে একহাত নেন। কেন্দ্রীয় শিক্ষানীতি সম্পর্কে বলতে গিয়ে শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু বলেন ” কেন্দ্রীয় শিক্ষানীতি একটা তুঘলকি ঘটনা ঘটাচ্ছে।আমরা এর প্রতিবাদ করি। রাজ্যের হাত থেকে সমস্ত ক্ষমতা কেন্দ্র নিয়ে নিচ্ছে।”

আরও পড়ুন