ফিরহাদের পর এবার নারদ মামলায় সিবিআই এর হাতে গ্রেফতার হলেন সুব্রত-মদন -শোভন

ইউবিজি নিউজ ব্যুরো : নারদ স্টিং অপারেশন মামলায় সোমবার সকাল থেকে একাধিক ঘটনায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে কলকাতায়। আজই এই মামলার প্রথম চার্জশিট পেশ। তার আগে সাতসকালেই চেতলার বাড়িতে গিয়ে রাজ্যের পরিবহণ মন্ত্রী তথা তত্‍কালীন পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমকে সিবিআই দপ্তর অর্থাত্‍ নিজাম প্যালেসে নিয়ে আসা হয়েছে। আনা হয়েছে মদন মিত্র, সুব্রত মুখোপাধ্য়ায়, শোভন চট্টোপাধ্যায়কেও। এঁদের সকলেরই ফুটেজ রয়েছে স্টিং অপারেশন। নেতা, মন্ত্রীদের গ্রেপ্তারির সঙ্গে সঙ্গেই প্রতিবাদে নেমেছে তৃণমূল। এই সংক্রান্ত সমস্ত খুঁটিনাটি LIVE:

সকাল ১০.৩২: নারদ কাণ্ডে কলকাতায় তৃণমূল কর্মীদের বিক্ষোভের জের। বিজেপির হেস্টিংস অফিসে বাড়ল নিরাপত্তা।

আজ বিজেপি নেতা, কর্মীদের সেখানে যেতে নিষেধ করেছে শীর্ষ নেতৃত্ব, খবর সূত্রের।

সকাল ১০.২৫: ফিরহাদ হাকিমের পর গ্রেপ্তার সুব্রত মুখোপাধ্যায়, শোভন চট্টোপাধ্যায়, মদন মিত্র। জানাল সিবিআই। এঁদের বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য ধারায় মামলায় দায়েরের সম্ভাবনা।

সকাল ১০.১৫: এই গ্রেপ্তারি আইন অনুমোদন করে না। আইন না মেনেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে ফিরহাদ হাকিমকে। প্রতিক্রিয়া বিধানসভার স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়ের। নিয়ম অনুযায়ী, কোনও বিধায়ককে গ্রেপ্তার বা তাঁর বিরুদ্ধে তদন্ত চালাতে স্পিকারের অনুমতি প্রয়োজন।

সকাল ৯.৩০: নিজাম প্যালেসে নিয়ে পৌঁছলেন ফিরহাদ হাকিম। ইতিমধ্যেই সেখানে আনা হয়েছে সুব্রত মুখোপাধ্যায়, মদন মিত্র ও শোভন চট্টোপাধ্যায়কে। নারদা স্টিং অপারেশনে এঁদের ভিডিও ফুটেজ দেখা গিয়েছে। সকলকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ‘আটক’ করা হয়েছে, দাবি সিবিআইয়ের।

সকাল ৯.০৫: ফিরহাদকে সিবিআই নিয়ে যেতেই ক্ষোভে ফেটে পড়েন চেতলার তৃণমূল কর্মীরা। কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানদের সঙ্গে বচসা, বাকবিতণ্ডা। পথ অবরোধ তৃণমূল কর্মী, সমর্থকদের। মহিলারাও শামিল হন প্রতিবাদে।

সকাল ৯: চেতলায় ফিরহাদ হাকিমের বাড়িতে কেন্দ্রীয় বাহিনীর প্রচুর জওয়ান, সঙ্গে সিবিআই আধিকারিকরা। তাঁকে বের করে নিয়ে যাওয়া হল। ‘নারদ মামলায় আমাকে গ্রেপ্তার করছে, স্পিকারের অনুমতি ছাড়াই গ্রেপ্তার করছে, কোর্টে দেখে নেব’, সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে এই চ্যালেঞ্জ ছুড়ে বেরিয়ে গেলেন রাজ্যের পরিবহণ মন্ত্রী।