Ad
রাজ্য

শিক্ষকরূপী নরপিশাচের যৌনলালসায় অন্তঃসত্ত্বা চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী

এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর রয়েছে

UBG NEWS, ডেস্ক :মানুষ গড়ার দায়িত্ব তার কাঁধে। কিন্তু যে নিজেই মানুষ নয়, সে কীভাবে মানুষ গড়বে? বরং শিক্ষকরূপী ওই নরপিশাচের যৌনলালসার বলি হল এক রত্তি মেয়ে। পাঁচ মাস আগে স্কুল ছুটির পর শ্রেণিকক্ষে নিয়ে গিয়েই চতুর্থ শ্রেনির ছাত্রীকে ধর্ষণ করেছিল নুরুজ্জামান নামে ‘নরপিশাচ’ শিক্ষক। আর তার ফলেই অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে ছোট্ট মেয়েটি। গোটা ঘটনা জানাজানি হতেই এলাকায় উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। শনিবার বিকালে ‘গুণধর’ শিক্ষককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

লজ্জাজনক ঘটনাটি ঘটেছে সিরাজগঞ্জের এনায়েতপুরে।এনায়েতপুর থানার ওসি মাসুদ পারভেজ জানিয়েছেন, ‘প্রায় সাড়ে পাঁচ মাস আগে চৌহালী উপজেলার এনায়েতপুরের মাঝগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নুরুজ্জামান চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রীকে স্কুল ছুটির পর কথা আছে বলে শ্রেণিক্ষে ডেকে নিয়ে যায়। তার পর তার মুখ চেপে ধরে ধর্ষণ করে।

Ad

 ছাত্রীটি ঘটনার আকস্মিকতায় কান্নাকাটি শুরু করলে ‘অভিযুক্ত’ শিক্ষক নুরুজ্জামান তাকে ভয় দেখায়, ঘটনার কথা কাউকে বললে ছাত্রীর পরিবারের সবাইকে খুন করবে। ভয়ে ওই ছাত্রী ঘটনাটি কাউকে জানায়নি। কয়েক দিন আগে শিশুটি অসুস্থ হয়ে পড়লে তার বাবা-মা চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যান। চিকি‍ৎসকের সন্দেহ হওয়ায় গত মঙ্গলবার আলট্রাসোনোগ্রাফি করা হয়। রিপোর্টে জানা যায়, ছাত্রীটি ৫ মাস ৪ দিনের অন্তঃসত্ত্বা।’

ঘটনা জানাজানি হওয়ার পরেই স্থানীয় বাসিন্দারা ক্ষোভে ফেটে পড়েন। শেষ পর্যন্ত এদিন দুপুরে অভিযুক্ত শিক্ষকের নামে এনায়েতপুর থানায় ধর্ষণের মামলা দায়ের করা হয়। পুলিশ সঙ্গে সঙ্গেই অভিযুক্ত শিক্ষককে বিদ্যালয় থেকে গ্রেফতার করে। শিক্ষকের এমন ‘অপকর্মের’ কথা শুনে চমকে উঠেছেন চৌহালী উপজেলার শিক্ষা আধিকারিক জাহাঙ্গীর ফিরোজ। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘একজন শিক্ষকের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ উদ্বেগ ও দুঃখজনক। দোষী প্রমাণিত হলে বিভাগীয় ও আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

ধর্ষিতা স্কুলছাত্রীর বাবা মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছেন। সাংবাদিকদের সঙ্গে এ বিষয়ে কথা বলতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন। কান্না জড়িত কণ্ঠে বলেন, ‘দিনমজুরি করে খাই। আমাদের কোনও লোকজন নেই। শিক্ষক বিত্তশালী হওয়ায় অনেকেই বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেছে। আমি প্রশাসনের কাছে এ ঘটনার ন্যায় বিচার চাই।’

আরও পড়ুন