রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে কালো পতাকা দেখানোর অভিযোগ! অস্বীকার তৃণমূলের

উওর ২৪ পরগনাঃ বসিরহাট মহাকুমার বাদুড়িয়া বিধানসভার বিজেপি প্রার্থী সুকল্যাণ বৈদ্যর সমর্থনে সোমবার দুপুরবেলা বদুড়িয়া রথতলা মাঠে প্রকাশ্য জনসভায় বিজেপি নেতা ও প্রার্থী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়, বিজেপি নেত্রী পাপিয়া অধিকারী, জেলার সাংগঠনিক সভাপতি তারকনাথ ঘোষ এছাড়া স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব উপস্থিত ছিলেন।

আগামী ২২ শে এপ্রিল বৃহস্পতিবার ষষ্ঠ দফার নির্বাচনের আজ শেষ দিন প্রচার, তাই এই প্রচারে বিজেপি জায়গা ছাড়তে চাইছে না। আজকের প্রকাশ্য জনসভায় মধ্য দিয়ে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, আমি আর পাপিয়া দি যখন আসলাম তখন কিছু লোকজন কালো পতাকা দেখাচ্ছিলো, আমি জানি কালো পতাকাটা কি, কালো পতাকা হলো দুঃখের প্রতীক, তৃণমূলের দুঃখের দিন এসে গেছে, আজকে ওদের দেখে মনে হচ্ছে বাদুড়িয়া বিধানসভায় বিজেপি জিতবে।

পাশাপাশি বাদুড়িয়ার তৃণমূল নেতা আশিক বিল্লাহ দাবি করেন, এরকম কোন ঘটনা ঘটেনি, এটা সম্পূর্ণ মিথ্যে নোংরা রাজনীতি করছেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় সহ বিজেপি নেতৃত্ব। বাদুড়িয়া বিধানসভা তৃণমূলের শক্ত ঘাঁটি, বিজেপি হাজার চেষ্টা করলেও এখান থেকে জিততে পারবেন না। উনি এসব কথা বলে রাজনৈতিক ফায়দা তুলতে চাইছেন।

তার পাশাপাশি রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, বাদুড়িয়ার যিনি তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী হয়েছেন ইনি আগে কংগ্রেসের বহুবার এর বিধায়ক ছিলেন তিনি এখানে কোন কাজ করেননি নেই একটা কলেজ নেই ভালো রাস্তা নেই আর্সেনিকমুক্ত পানীয় জল তার থেকে বড় এখানকার মানুষের অসুবিধা ইছামতি নদীর উপর একটি ব্রিজ তৈরি করেছে গত ১০ বছর ধরে সেই ব্রিজটি এখনো পর্যন্ত চালু করতে পারলো না, তিনি এখন আবার তৃণমূলের নাম লিখিয়ে এখানকার মানুষের নাকি উন্নতি করবে, আপনারা আমাকে বিশ্বাস করে আমাদের প্রার্থী সুকল্যাণ বৈদ্যকে ভোট দিয়ে তাকে জয়ী করুন। আমি কথা দিচ্ছি এইসব সমস্যা থাকবে না।

তিনি আরো বলেন, এই বিধানসভার টি সংখ্যালঘু অধ্যুষিত এলাকা, কিন্তু সংখ্যালঘু ভাইরা আমাদের সঙ্গে আছে তারা এই সরকারের কাছ থেকে কি পেয়েছে, শুধু এদেরকে ভোটে ব্যবহার করা হয়েছে এদের কোনো রকম কোনো উন্নতি হয়নি, কারো কোন চাকরি দিতে পারেনি, মা বোনেদের সুরক্ষা দিতে পারেনি, এই সরকারকে আপনার যেতে দিন, একে আটকে রাখার কোন দরকার নেই। আমাদের সরকার ক্ষমতায় আসলে আমরা রুপশ্রী, কন্যাশ্রী, সবুজ সাথী, স্বাস্থ্য সাথী, বিধবা ভাতা, বার্ধক্য ভাতা এই সরকারে থেকেও অনেক বেশি আমরা দিতে পারব, এই সরকার মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করেছে, আমফানের টাকাপয়সা লুট করেছে, এই সরকারকে আর প্রয়োজন নেই মানুষের।