আজ ফের অভিষেকের স্ত্রীকে নোটিস?জেরা সিবিআইয়ের

ইউবিজি নিউজ ডেস্ক : আজই শহরে পা রাখছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তারই মধ্যে অভিষেকের স্ত্রীর বিরুদ্ধে তদন্তে তত্‍পর হতে শুরু করেছে সিবিআই। সূত্রের খবর আজ ফের তৃণমূল কংগ্রেস যুব কংগ্রেস সভাপতি রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নোিটস পাঠানো হতে পারে।

অভিষেকের শ্যালিকা মেনকাকে আগেই নোটিস পাঠিয়েছে সিবিআই। আজ মেনকাকে জেরা করা হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। গতকালও অভিষেকের স্ত্রীকে নোটিস পাঠিয়েছিল সিবিআই। কিন্তু সেসময় রুজিরা বাড়িতে ছিলেন না।

অভিষেক পত্নিকে দ্বিতীয় নোটিস

যুব তৃণমূল কংগ্রেস নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রী রুজিরাকে ফের নোটিস পাঠাতে পারে সিবিআই। গতকালের পর আজ সকাল থেকে ফের এই নিয়ে রাজনৈতিক পারদ চড়তে শুরু করেছে।

সূত্রের খবর আজ ফের সকাল ১১টা নাগাদ অভিষেক পত্নি রুজিরাকে নোটিস পাঠানে পারে সিবিআই। কয়লা কাণ্ডে লালার সূত্র ধরেই সিবিআইয়ের ব়্যাডারে রয়েছেন রুজিরা। তদন্তকারীদের নজরে রয়েছেন অভিষেকের শ্যালিকা মেনকাও।

নজরে রুজিরার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টসিবিআই সূত্রে খবর অভিষেক পত্নি রুজিরার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে চার দেশে আর্থিক লেনদেন হয়েছে। কোন সূত্র ধরে সেই আর্থিক লেনদেন সেটাই তদন্ত করে দেখতে চান সিবিআই আধিকারিকরা। গতকাল দুপুর ২টো নাগাদ অভিষেক পত্নির বাড়িতে গিয়ে নোটিস ধরানো হয়েছিল। দুপুর ৩েট নাগাদ তাঁরকে জেরা করার কথা বলেছিলেন তদন্তকারীরা। কিন্তু রুজিরা সেই সময় বাড়িেত ছিলেন না। রুজিরার পক্ষ থেকে কোনও যোগাযোগও করা হয়নি সিবিআইয়ের সঙ্গে।

রাজনৈতিক টার্গেট করা হয়েছেঘটনায় অত্যন্ত ক্ষুব্ধ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি অভিযোগ করেছেন একুশের ভোটে বিজেপি হালে পানি পাবে না জেনেই রাজনৈতিক রোষ মেটাতে পরিবারের সদস্যদের নিশানা করছে। পুরোটাই রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত বলে অভিযোগ করেছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। বিজেপি রাজনৈতিক ফায়দা তুলতে তাঁর পরিবারের সদস্যদের টার্গেট করছে বলে অভিযোগ করেছেন বিজেপির যুব তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি।

সিবিআই ব়্যাডারে অভিষেকের শ্যালিকাকয়লাকাণ্ডে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের শ্যালিকাকে নোটিস পাঠিয়েছে সিবিআই। মেনকাকে সাক্ষী করে জেরা করতে চায় সিবিআই। গতকালই তাঁকে জেরা করতে চেয়ে নোটিস পাঠিয়েছিল সিবিআই।

তদন্তকারীরা মনে করছেন অভিষেকের শ্যালিকার অ্যাকাউন্ট থেকে বেআইনি লেনদেন হয়েছে। লালার সূত্র ধরেই অভিষেকের শ্যালিকাকে জেরা করতে চাইছে সিবিআই। কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার এই পদক্ষেপে অত্যন্ত ক্ষুব্ধ তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার তাঁর মুখেই শোনা গিয়েছে খেলা হবে স্লোগান।