Ad
রাজনীতিরাজ্য

দিলীপের ডাকা বৈঠকে অনুপস্থিত মুকুল-রাজীব-সব্যসাচী-শুভ্রাংশু, জল্পনা তুঙ্গে

এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর রয়েছে

কলকাতা ৮ জুনঃ দলের সাংগঠনিক পদাধিকারীদের নিয়ে বৈঠকে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। বিধানসভা ভোটের ফল প্রকাশ এর পর আজ প্রথম শ্রেণীর নেতা দের নিয়ে বৈঠক হেস্টিংসে। জানা যায়, বৈঠকে যোগ দিচ্ছেন না দলের মুকুল রায়৷ শুভেন্দু অধিকারী দিল্লিতে থাকায় তিনি এই বৈঠকে থাকছেন না৷ তবে মুকুল রায়ের অনুপস্থিতি নিয়ে জোর জল্পনা শুরু হয়েছে রাজনতিক মহলে৷

একুশের নির্বাচনের পরাজয় এর পর বিপর্যস্ত অবস্থা বিজেপির। প্রায় প্রতিদিনই কেউ না কেউ উল্টো সুর গাইছে। অনাকে আবার তৃণমূলে ফিরতে চাইছেন। ভাঙন রুখতে জরুরি বৈঠক ডাকল রাজ্য বিজেপি। সেই বৈঠকে রাজ্য নেতাদের প্রত্যেককে সশরীরে উপস্থিত থাকতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যানাযায় মুকুল রায় ছাড়াও শুভ্রাংশু রায় নেই ওই বৈঠকে। নেই বিধাননগরের প্রাক্তন মেয়র সব্যসাচী দত্ত এবং রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ও।

Ad

সোমবারি নবনির্বাচিত তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, ‘বিধানসভা ভোটের মুখে দল ছেড়ে বিজেপিতে যাওয়া নেতারা আজ তৃণমূলে ফিরতে তৈরি। আবার একুশের বিধানসভা ভোটে বিজেপির টিকিটে জয়ী অনেক বিধায়ক তৃণমূলে যোগ দিতে চাইছেন। বিজেপির সঙ্গে থাকতে চাইছেন না তাঁরা। নিজেদের ভুল বুঝতে পেরে তাঁরা আজ তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং দলের কর্মীদের কাছে ক্ষমা চাইছেন। যদিও তাঁদের তৃণমূলে কবে ফেরানো হবে বা যোগদান করানো হবে সে বিষয়ে নির্দিষ্ট করে এখনও দিন স্থির হয়নি।‘ অভিষেকের এই বক্তব্য বিজেপিকে অস্বস্তিতে ফেলেছে বলেই মত রাজনৈতিক মহলের৷

তথাগত রায়ের একের পর এক পোস্টও রাজ্য নেতাদের অস্বস্তি বাড়িয়েছে। এই অবস্থায় লোকসভা নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে ঘুরে দাঁড়ানোর স্ট্র‌্যাটেজি খুঁজতেই বসছে বৈঠক। শোনা যাচ্ছে সাংগঠনিক রদবদলের কথাও। তবে মুকুল রায়ের অনুপস্থিত নিয়ে দলের রাজ্য নেতাদের বক্তব্য, করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর মুকুল রায়ের শরীর ভাল নেই৷ তাই তিনি বৈঠকে থাকতে পারছেন না৷

কয়েকদিন আগেই, পুরোনো দল তৃণমূল কংগ্রেসকে নিয়ে বিজেপির আচরণের তীব্র সমালোচনা করেছেন মুকুল রায়ের পুত্র শুভ্রাংশু রায় ৷ বীজপুরের প্রাক্তন বিধায়ক শুভ্রাংশু রায়ের একটি বিস্ফোরক ফেসবুক পোস্ট ঘিরে রাজ্য-রাজনীতিতে চর্চা শুরু হয়েছে। ওই পোস্টে বিজেপিকে আত্মসমালোচনার পরামর্শ দিয়েছেন শুভ্রাংশু৷ শুধু তাই নয়, মুকুল রায়ের করোনা আক্রান্ত স্ত্রীকে হাসপাতালে দেখতে গিয়েছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়৷

কলকাতার হেস্টিংসে যখন রাজ্য বিজেপি‌ সভাপতির ওই বৈঠক চলছে তখন দিল্লিতে দলের সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠক করছেন শুভেন্দু অধিকারী।

আরও পড়ুন