জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে ইলেকট্রিক স্কুটারে নবান্নে গেলেন মমতা

কলকাতা, ২৫ ফেব্রুয়ারিঃ অভিনব পদ্ধতিতে জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদ করলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন গাড়ির বদলে বাড়ি থেকে হেঁটে হাজরা মোড় আসেন তিনি। সেখান থেকে ইলেকট্রিক স্কুটারে নবান্নে যান মমতা। এদিন চালকের আসনে ছিলেন রাজ্যের পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম।

অগ্নিমূল্য পেট্রোপণ্য। লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে পেট্রল ডিজেলের দাম। একমাসে তিনবারে ১০০ টাকা দাম বেড়েছে রান্নার গ্যাসেরও। যার জেরে নাভিশ্বাস মধ্যবিত্তের। লিটার পিছু পেট্রল-ডিজেল একশো টাকা ছুঁইছুঁই। সেই কারণে গত ২০ ও ২১ ফেব্রুয়ারি তৃণমূল কর্মীদের রাজ্য জুড়ে বিক্ষোভ-মিছিলের নির্দেশ দিয়েছিলেন মমতা। নিজে একাধিক জনসভা ও কর্মসূচিতে লাগাতার পেট্রোপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির কারণে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়েছেন। রাজ্যা সরকার পেট্রল ও ডিজেলের উপর থেকে এক টাকা করে করও কমিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে আজ, বৃহস্পতিবার অভিনব পদ্ধতিতে প্রতিবাদ জানালেন মমতা। ইলেকট্রিক স্কুটারে চেপে নবান্নে গেলেন তিনি।

এদিন নবান্নে পৌঁছে সংমাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে মোদী সরকারকে ভাঁওতাবাজ বলে তীব্র আক্রমণ করেন তৃণমূল সুপ্রিমো। তিনি বলেন, “রান্নাঘরে আগুন লেগেছে। ভোট এলে বলে বিনামূল্যে গ্যাস দেবে। উল্টে গ্যাসের দাম বাড়িয়ে দেয়। এদের থেকে বড় ভাঁওতাবাজ নেই”।

জ্বালানির লাগামহীন দামবৃদ্ধির প্রতিবাদ জানিয়ে পেট্রোপণ্যকে GST-এর আওতায় আনার দাবি জানান মুখ্যমন্ত্রী। একইসঙ্গে মোদী সরকারের নামবদল নীতি নিয়েও কটাক্ষ করতে ছাড়েননি তৃণমূল সুপ্রিমো। মোতেরায় স্টেডিয়ামের নাম পরিবর্তন করে প্রধানমন্ত্রীর নামে হওয়ার প্রসঙ্গ উল্লেখ করে তিনি বলেন, “মোদী সরকার দেশবিরোধী। পারলে সব বিক্রি করে দেয়। নাম পাল্টে দেয়। এরা কোনদিন না দেশের নামটাই পাল্টে দেন”।