প্রয়াত পরিচালক বুদ্ধদেব দাশগুপ্ত, শোকপ্রকাশ মুখ্যমন্ত্রীর

কলকাতা, ১০ জুনঃ প্রয়াত হলেন পরিচালক সাহিত্যিক বুদ্ধদেব দাশগুপ্ত। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৭ বছর। বৃহস্পতিবার ভোর ৬টায় দক্ষিণ কলকাতায় নিজের বাসভবনে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। কেবল পরিচালনা নয়, সাহিত্য জগতেও সমান ভাবে প্রসিদ্ধ ছিলেন বুদ্ধদেব দাশগুপ্ত। বিশিষ্ট পরিচালক, কবির প্রয়াণে শোকপ্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শোকবার্তায় বুদ্ধদেব দাশগুপ্তের পরিবার-পরিজন ও অনুরাগীদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

দীর্ঘদিন ধরে কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন বুদ্ধদেব দাশগুপ্ত। তাঁর ডায়ালিসিস চলছিল। আজও ডায়ালিসিস হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ভোরবেলা তাঁর স্ত্রী সোহিনী দাশগুপ্ত দেখেন, বুদ্ধদেব বাবুর শরীর ঠান্ডা হয়ে গিয়েছে। শরীরে আর প্রাণ নেই। ঘুমের মধ্যেই তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। পরিবার সূত্রে খবর, তাঁর দুই মেয়েই মুম্বইয়ে থাকেন। করোনাবিধির কারণে তাঁরা আসতে পারছেন না। আজ যত তাড়াতাড়ি সম্ভব বুদ্ধদেব দাশগুপ্তর শেষকৃত্য় সম্পন্ন হবে।

সত্যজিৎ রায়, ঋত্বিক ঘটক, মৃণাল সেনদের যোগ্য উত্তরসূরি ছিলেন বুদ্ধদেব দাশগুপ্ত। বাংলা ছবিকে অন্য মাত্রা এনে দিয়েছিলেন তিনি। সত্যজিৎ রায়, ঋত্বিক ঘটক, মৃণাল সেনদের পর বুদ্ধদেব দাশগুপ্তের বাংলা ছবি গোটা দেশের পাশাপাশি বিদেশের দর্শকদেরও প্রশংসা কেড়েছে। ছবি পরিচালনার পাশাপাশি লিখতেন কবিতাও। কবি বুদ্ধদেব দাশগুপ্ত অল্প কয়েকদিনের মধ্যেই বাংলার সাহিত্য জগতে আলাদা জায়গা করে নিতে পেরেছিলেন।

বিশিষ্ট পরিচালকের প্রয়াণে শোকাহত মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রয়াত পরিচালকের পরিবারের সদস্য ও শুভানুধ্যায়ীদের সমবেদনা জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। বুদ্ধদেব দাশগুপ্তের প্রয়াণের বাংলার চলচ্চিত্র জগতের অপূরণীয় ক্ষতি হল বলেও শোকবার্তায় লিখেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

শোকবার্তায় মুখ্যমন্ত্রী লিখেছেন, ‘‘বিশিষ্ট চিত্রপরিচালক বুদ্ধদেব দাশগুপ্তের প্রয়াণে আমি গভীর শোক প্রকাশ করছি। তিনি আজ কলকাতায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। বয়স হয়েছিল ৭৭ বছর। তাঁর পরিচালিত উল্লেখযোগ্য ছবি তাহাদের কথা, বাঘ বাহাদুর, উত্তরা, চরাচর, মন্দ মেয়ের উপাখ্যান, কালপুরুষ ইত্যাদি।