Ad
রাজ্য

আসানসোলে দলীয় কর্মীদের বিক্ষোভের মুখে দিলীপ ঘোষ

এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর রয়েছে

আসানসোল, ৭ জুনঃ ফের দলীয় কর্মীদের বিক্ষোভের মুখে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। সোমবার আসানসোলে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বিক্ষোভ দেখালেন বিজেপি নেতা ও কর্মীদের একাংশ। দিলীপ ঘোষের সামনেই চরম অসন্তোষ প্রকাশ করেন তাঁরা। তাঁদের অভিযোগ, যারা নির্বাচনের পরে ঘরছাড়া তাঁদের সঙ্গে বৈঠক না করে নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করছেন রাজ্য সভাপতি।

এই বিক্ষোভে নেতৃত্ব দেন জেলা ওবিসি মোর্চার সহ-সভাপতি কালাচাঁদ মণ্ডল ও শ্রমিক সংগঠনের নেতা রবীন্দ্রনাথ রায়। পরিস্থিতি এমনটা হয় যে, অফিসের শাটার বন্ধ করে দিতে হয়। যদিও দিলীপ ঘোষ এটাকে ক্ষোভ বলে মানতে চাননি। তার মতে, এটা জিততে না পারার একটা হতাশা।

Ad

সোমবার নির্বাচনের ফলের আলোচনার জন্য জেলা নেতৃত্ব ও মণ্ডল সভাপতিদের সঙ্গে বৈঠক করতে আসানসোলে যান বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। আসানসোলের ২ নম্বর জাতীয় সড়কের ধারে ধাদকার পার্টি অফিসে এই বৈঠক হয়। বৈঠকে দিলীপ ঘোষ ছাড়াও ছিলেন দলের জেলা কনভেনার, জেলা সভাপতি, রাজ্য মহিলা মোর্চার সভানেত্রী তথা বিধায়ক অগ্নিমিত্রা পাল, জিতেন্দ্র তিওয়ারি সহ অন্যসব শাখা সংগঠনের নেতৃত্ব।

এই বৈঠকে জায়গা না পেয়ে বিক্ষোভে শামিল হন বিজেপির নেতা ও কর্মীরা। সেই সময় বিজেপি জেলা নেতৃত্ব বিক্ষোভরত কর্মীদের দলীয় কার্যালয়ের বাইরে বার করে দেওয়ার পর আরও উত্তেজনা বাড়ে। পরে জেলা কনভেনার শিবরাম বর্মন আশ্বাস দেন বৈঠকের পর রাজ্য সভাপতি তাঁদের সঙ্গে কথা বলবেন। তারপরেই বিক্ষোভ থামে।

বৈঠকে পরে দিলীপ ঘোষ বলেন, “এই জেলার সবাই বিধানসভা নির্বাচনে খুব পরিশ্রম করেছেন৷ জেলায় তিনটি কেন্দ্রে দলের প্রার্থীরা জিতেছেন। সবার একটা প্রত্যাশা ছিল যে, দল বাংলায় এবার ক্ষমতায় আসবে। শক্তি বাড়লেও, দল ক্ষমতায় আসতে পারেনি। তার থেকেই দলের নেতা ও কর্মীদের মধ্যে হতাশা তৈরি হয়েছে। এটাকে ক্ষোভ কোনভাবেই বলা যায় না। এটা স্বাভাবিক। এটা সব জায়গাতেই হচ্ছে। আমরা তাঁদের মনোবল ফিরিয়ে আনতে পারছি। কেন হার হয়েছে, তার পর্যালোচনা করা হচ্ছে। সামনে পুরনির্বাচন ও দেড়বছর পরে পঞ্চায়েত ভোট রয়েছে। আমরা এইসব ভোটে লড়াই করার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছি।”

এর আগে সভার শুরুতে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন দিলীপ ঘোষ। তিনি সেই বৈঠক থেকে বলেন, ‘‘পশ্চিম বর্ধমান জেলা নির্বাচনের আগে-পরে ভালো কাজ করেছে। ভোটের ফলের বিচারেও এখানে অনেকটাই সাফল্য পেয়েছে বিজেপি। সবাইকে অভিনন্দন জানাতে এসেছি। এই জেলাতেও অনেক কর্মী বাড়ি ছাড়া, তাঁদের সঙ্গেও কথা বলতে এসেছি।’’

আরও পড়ুন