প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ মামলায় শর্তসাপেক্ষে অনুমতি শীর্ষ আদালতের, ভোটের মুখে স্বস্তি রাজ্যের

ইউবিজি নিউজ : প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের প্রক্রিয়ায় যে আইনি জটিলতা তৈরি হয়েছিল তা কেটে গেল। ভোটের মুখে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে বড় স্বস্তি পেল রাজ্য সরকার। ১৫ হাজার ২৮৪ জন প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে শর্তসাপেক্ষে অনুমতি দিল শীর্ষ আদালত

ভোটের মুখে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ মামলায় আরও বড় স্বস্তি রাজ্যের। শর্তসাপেক্ষে ১৫,২৮৪ পদে নিয়োগে বাধা কাটল রাজ্যের। শীর্ষ আদালত মামলাটি খারিজ করায় এই মামলা চলবে হাইকোর্টে। আর আগেই এই মামলায় প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে সায় দিয়েছিল হাইকোর্ট।

প্রাথমিকে নিয়োগে দুর্নীতি হয়েছে। তাই নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিল করার দাবিতে পিটিশন জমা পড়েছিল আদালতে। কিন্তু শীর্ষ আদালত সেই মামলা খারিজ করে হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চের রায়কে বহাল রেখেছে। মামলাটি হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চেই পাঠিয়ে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। ফলে এই মামলার চূড়ান্ত নিষ্পত্তি করবে কলকাতা হাইকোর্ট।

গত ফেব্রুয়ারিতে মুখ‍্যমন্ত্রীর ঘোষনা মতো পনেরো হাজার শূন‍্য পদে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে বোর্ড। এরপর, চলে প্রক্রিয়াকরণ। এরপরে বিজ্ঞপ্তিকে চ্যালেঞ্জ করে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করেন কয়েকজন চাকরিপ্রার্থী।অভিযোগ করেন, প্রাথমিকে যে নিয়োগের কথা বলা হচ্ছে, তার কোনও মেধা তালিকা প্রকাশ করা হয়নি। SMS বা ফোন করে প্রার্থীকে প্রাথমিক শিক্ষক পদে নিয়োগ করা হচ্ছে।

সিঙ্গল বেঞ্চ সেই মামলায় নিয়োগ স্থগিত করে দিলে ডিভিশন বেঞ্চে যায় রাজ‍্য। ডিভিশন বেঞ্চ সিঙ্গল বেঞ্চের রায়কে খারিজ করে নিয়োগ প্রক্রিয়া চালানোর অনুমতি দেয়। এদিন ডিভিশন বেঞ্চ নির্দেশ দেয়, রাজ্য সরকার প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করতে পারে। ২ সপ্তাহের মধ্যে রাজ্যের যেখানে যেখানে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের অফিস রয়েছে, সেখানে পূর্ণাঙ্গ মেরিট লিস্ট যথাযথ ভাবে টাঙাতে হবে। আজ সুপ্রিম কোর্ট সেই মামলাকে খারিজ করে ডিভিশন বেঞ্চের রায়কেই বহাল রাখে। ফলে নিয়োগ ক্ষেত্রে আর কোনো বাধা থাকলো না।