নন্দীগ্রামে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে প্রার্থী আব্বাস পরিবারের সদস্য, সাংবাদিক বৈঠকে জানালেন আব্বাস সিদ্দিকী

 

ইউবিজি নিউজ ব্যুরো : বিধানসভা নির্বাচনে নন্দীগ্রাম আসন থেকে মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে আব্বাস সিদ্দিকীর পরিবারের কেউ প্রার্থী হচ্ছেন। এমনই জানালেন খোদ আব্বাস। তবে এখনই প্রার্থীর নাম জানাতে চাননি।বামফ্রন্ট ও কংগ্রেসের সঙ্গে জোট করেই ফুরফুরা শরিফের পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকী ভোটে লড়াই করার আগ্রহ ফের দেখিয়েছেন।

সাংবাদিক বৈঠকে তিনি বলেন, নন্দীগ্রাম কেন্দ্র থেকে জোটের আইএসএফ (ইন্ডিয়ান সেক্যুলার ফ্রন্ট) প্রার্থী দাঁড়াচ্ছেন।বামফ্রন্ট শরিক সিপিআই ছিল। তাদের সঙ্গে আলোচনা হয় ফ্রন্টের বাকি শরিকদের। শেষপর্যন্ত নন্দীগ্রাম আব্বাসের আইএসএফ’কে ছেড়ে দিয়েছে সিপিআই। এই বিষয়ে বামফ্রন্টের মতৈক্য হয়েছে বলেই জানা যাচ্ছে।কে হবেন নন্দীগ্রামে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে মহাজোটের প্রার্থী?

আলোচনার তালিকায় উঠে আসছে পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকীর ভাই নৌশাদ সিদ্দিকীর নাম। তবে সাংবাদিক বৈঠকে আব্বাস সিদ্দিকী বলেন, পরিবারের খুব ঘনিষ্ঠ একজন নন্দীগ্রামে প্রার্থী হতে আগ্রহ দেখিয়েছে। সে এই ব্যাপারে ‘সিরিয়াস’। মনে হয় তৃণমূল কংগ্রেস সরকারের বিরুদ্ধে তার কিছু ক্ষোভ রয়েছে।

ফুরফুরা শরিফের পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকী আরও জানান, বামফ্রন্ট ও কংগ্রেসের সঙ্গে আসন রফা নিয়ে মতৈক্যের জায়গায় আসা গিয়েছে। দ্রুত সিদ্ধান্ত নেবে মহাজোট।কলকাতার ভবানীপুর ছেড়ে পূর্ব মেদিনীপুরের নন্দীগ্রাম আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার কথা জনসভাতেই ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে শুভেন্দু অধিকারী বিজেপি তে চলে যাওয়ার পরেই নন্দীগ্রাম থেকে তাঁকে ও বিজেপি কে চ্যালেঞ্জ করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।নন্দীগ্রাম ঘিরে মমতা-শুভেন্দু দ্বিমুখী লড়াইয়ের মাঝে এবার আলোচিত প্রার্থী হতে চলেছেন বাম-কংগ্রেস মহাজোটের আব্বাস সিদ্দিকীর ‘পরিবারের কেউ’।

এদিকে দুই ২৪পরগনা জুড়ে সংখ্যালঘু, আদিবাসী, পিছিয়ে পড়া শ্রেণীকে সরাসরি বিজেপি ও তৃণমূলের বিরুদ্ধে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছেন আব্বাস সিদ্দিকী। একের পর এক জনসভা থেকে কড়া হুঁশিয়ারি দিয়ে চলেছেন। আব্বাসের জনসভাগুলিতে ভিড় রাজনৈতিক আলোচনার অন্যতম চর্চা।