Ad
রাজনীতিরাজ্য

২৩ জুন থেকে রাজ্য জুড়ে আন্দোলনে নামছে বিজেপি ,ঘোষণা বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের

এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর রয়েছে

ওয়েব ডেস্ক, ৮ জুনঃ ২৩ জুন থেকে রাজ্য জুড়ে আন্দোলনে নামছে বিজেপি। মঙ্গলবার এই ঘোষণা করলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ৷ তিনি বলেন, সরকারকে সহযোগিতা করতে চাই, কিন্তু বিজেপি শূন্য রাজনীতির চেষ্টা চলছে। গণতান্ত্রিক অধিকারের জন্য রাস্তায় নামবে বিজেপি।

এদিন কলকাতার হেস্টিংস অফিসে রাজ্য বিজেপির পর্যালোচনা বৈঠক ছিল। সেই বৈঠকে দিলীপ ঘোষ-সহ একাধিক রাজ্য নেতা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠক শেষে রাজ্য সরকারকে বিঁধলেন দিলীপ ঘোষ। বললেন, “বাংলাকে বিরোধীশূন্য করার চেষ্টা করছে। আদালত বলার পরেও পরিস্থিতির বদল হয়নি। বাংলার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে রাষ্ট্রপতির কাছে যাব। ভ্যাকসিন নিয়েও রাজ্যে রাজনীতি চলছে। “

Ad

এরপর তৃণমূলকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, ‘একটি স্থানীয় দলের নেতা কী করে অল ইন্ডিয়া প্রেসিডেন্ট হয়, সেটা চিন্তার বিষয়।” সরাসরি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমণ করে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন,  বাংলার মানুষ নিজের মেয়েকে চায় না এটা বুঝিয়ে দিয়েছিল মেদিনীপুর। তাও তিনি মুখ্যমন্ত্রী হয়েছেন। যিনি জিতেছেন তাঁর মুখ দেখতে চান না মুখ্যমন্ত্রী। মানুষ যাঁকে স্বীকৃতি দিয়েছে তাঁকে স্বীকৃতি দেন না মুখ্যমন্ত্রী।’

এদিন তিন সদস্যের শৃঙ্খলা রক্ষা কমিটি গড়ল বিজেপি। কমিটির মাথায় রয়েছেন সাংসদ সুভাষ সরকার। অন্য দুই সদস্য হলেন বিশ্বপ্রিয় রায়চৌধুরী ও রথীন বোস। সূত্রের খবর, দলের অন্দরের ক্ষোভ-দ্বন্দ্ব সামাল দিতেই এই কমিটি বলে মনে করা হচ্ছে। আগামী দিনে রাজ্যে বিজেপির কর্মসূচিও ঠিক করা হয় এই বৈঠকে।

এদিন বৈঠকে ছিলেন না মুকুল রায়৷ অন্যদিকে, শুভেন্দু অধিকারী দিল্লিতে থাকায় তিনি এই বৈঠকে থাকছেন না৷ এ প্রসঙ্গে দিলী ঘোষ বললেন, “মিটিং ছিল জানতাম। কিন্তু কেন গিয়েছে জানি না। শুভেন্দু বা দিল্লির নেতারা বলতে পারবে। হয়তো কোনও জরুরি দরকারে গিয়েছে।” তবে মুকুল রায়ের অনুপস্থিতি নিয়ে জোর জল্পনা শুরু হয়েছে৷ তবে রাজ্য সভাপতি বললেন, ‘বৈঠকের সূচনা সবাইকেই দেওয়া হয়েছে। যতদূর জানি, উনি বলেছিলেন, সময় পেলে আসব’।

আরও পড়ুন