Ad
রাজ্য

বাঙালি খুশি বাংলায়! বিদেশি মদ-বিয়ারের থেকে বেশি চাহিদা দেশি মদের

এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর রয়েছে

ইউবিজি নিউজ ডেস্ক : পশ্চিমবঙ্গে দেশি মদের চাহিদা এবং বিক্রি ক্রমেই বেড়ে চলেছে । সেই তুলনায় বাজারে অনেকটাই পড়তি ইন্ডিয়ান-মেড ফরেন লিকার (Indian-Made Foreign Liquor), যাকে সংক্ষেপে বলা হয় IMFL এবং বিয়ারের চাহিদা ।

এই পুজোর মরসুমে রাজ্যে মদ বিক্রির পরিসংখ্যান দেখলেই বিষয়টা পরিষ্কার হয়ে যাবে । বলে রাখা ভাল, রাজ্য সরকার পরিচালিত ওয়েস্ট বেঙ্গল স্টেট বেভারেজেস কর্পোরেশন (West Bengal State Beverages Corporation) বা BEVCO-ই হল রাজ্যের একমাত্র অনুমোদিত পাইকারি মদ বিক্রয়কারী সংস্থা ।

Ad

দেখে নেওয়া যাক, পুজোর মরশুমে BEVCO-র কাছ থেকে রাজ্যের খুচরো মদ বিক্রেতারা কোন ধরনের মদ কত পরিমাণে কিনেছে । চলতি অক্টোবর মাসের প্রথম 12 দিনে BEVCO-র কাছ থেকে খুচরো মদ বিক্রেতারা তুলেছে 1.46 কোটি লিটার দেশি মদ, রাজ্য আবগারি দফতরের হিসাব অনুযায়ী বিগত পাঁচ বছরের মধ্যে যা সর্বোচ্চ । সেই তুলনায় ওই একই সময়ে IMFL বা বিয়ারের চাহিদা অনেকটাই কম ছিল ৷ প্রথম 12 দিনে, BEVCO-র কাছ থেকে রাজ্যের খুচরো মদ বিক্রেতারা তুলেছে মাত্র 37.93 লক্ষ লিটার বিদেশি মদ, যা দেশি মদের বিক্র্রির পরিসংখ্যানের মাত্র 26 শতাংশ । বিদেশি মদের তুলনায় সামান্য বেশি হলেও ওই একই সময়ে বিয়ার বিক্রির পরিসংখ্যানও দেশি মদ বিক্রির তুলনায় নস্যি ৷ BEVCO-র কাছ থেকে রাজ্যের খুচরো মদ বিক্রেতারা তুলেছে মাত্র 43.74 লিটার বিয়ার, যা দেশি মদের বিক্রির পরিসংখ্যানের মাত্র 30 শতাংশ ।

টাকার নিরিখে চলতি মাসের এই প্রথম 12 দিনে BEVCO রাজ্যের খুচরো বিক্রেতাদের কাছে বিক্রি করেছে 720 কোটি টাকার মদ । রাজ্যের আবগারি রাজস্ব আদায় হয়েছে 550 কোটি টাকা । খুচরো মদ বিক্রেতা ওম প্রকাশ গুপ্তার মতে, “রাজ্যে বরাবরই দেশি মদের চাহিদা IMFL বা বিয়ারের চাহিদার থেকে বেশি থাকে । কিন্তু আগে IMFL বা বিয়ারের চাহিদা সাধারণত দেশি মদের চাহিদার 50 শতাংশ থাকত । কিন্তু এবারে সেই শতাংশ কমে হয়েছে 25-30 শতাংশ । এর থেকে একটা জিনিস পরিষ্কার যে IMFL ক্রেতারা দেশি মদের দিকে সরে এসেছে ৷”

প্রাক্তন সাংবাদিক এবং অর্থনৈতিক বিশ্লেষক শান্তনু সান্যাল জানিয়েছেন, “এই অতিমারি পরিস্থিতিতে অর্থনৈতিক ব্যবস্থা বহু জায়গায় ভেঙে যাওয়ার ফলে লোকের পকেটে টান পড়েছে । অথচ নেশা এমন একটি বস্তু যাকে মানুষ সহজে ছাড়তে পারে না । দেশি মদ, IMFL বা বিয়ারের তুলনায় সস্তা । তাই বেশ কিছু লোক দেশি মদের দিকে ঝুঁকছে ৷” অর্থনৈতিক বিশ্লেষক নীলাঞ্জন দে’র মতে, “সম্ভবত দেশি মদের সঙ্গে IMFL বা বিয়ারের আবগারি হারের তফাত রয়েছে । তাই দামের তারতম্যটাও বেশি । আর এই অতিমারি কালে লোকে খরচ কমাচ্ছে । তাই এই ট্রেন্ড স্বাভাবিক ৷”

আরও পড়ুন