Ad
উত্তর দিনাজপুররাজ্য

ছাত্রীকে ধর্ষণ করে খুনের অভিযোগ, উত্তপ্ত চোপড়া

এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর রয়েছে

নিজস্ব সংবাদদাতা, উত্তর দিনাজপুর : মাধ্যমিক উত্তীর্ণা এক কিশোরীর মৃতদেহ উদ্ধারকে ঘিরে ব্যাপক উত্তেজনা ও চাঞ্চল্য ছড়াল। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর দিনাজপুর জেলার চোপড়া থানার সোনাপুর গ্রামপঞ্চায়েতের ছত্রাগছ এলাকায়।

মৃতা কিশোরীর পরিবার ও স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ দুস্কৃতীরা ওই কিশোরীকে ধর্ষন করে বিষ খাইয়ে খুন করে ফেলে রেখে গিয়েছে। ঘটনার প্রতিবাদে ও দোষীদের গ্রেফতারের দাবিতে স্থানীয় বাসিন্দারা চোপড়ায় ৩১ নম্বর জাতীয় সড়কে টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে পথ অবরোধ বিক্ষোভে শামিল হয়।

Ad

স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি ঘটনাস্থল থেকে দুস্কৃতীদের মোবাইল ফোন সাইকেল ও পরিচয়পত্র মিলেছে। এলাকায় উত্তেজনা থাকায় ঘটনাস্থলে পৌঁছায় চোপড়া থানার বিশাল পুলিশবাহিনী। মৃতা কিশোরী এবছরই মাধ্যমিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণা হয়েছিলেন। পুলিশ কিশোরীর মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতালে পাঠানোর পাশাপাশি ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

এই ঘটনায় উত্তেজিত এলাকার বাসিন্দার একটি সরকারি বাস সহ বেশ কয়েকটি গাড়ি জ্বালিয়ে দেয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ বেশ কয়েক রাউন্ড গুলি চালায় বলে দাবি স্থানীয়দের।

স্থানীয় ও পরিবার সুত্রে জানা গিয়েছে, রবিবার সকালে চোপড়া থানার সোনাপুর গ্রামপঞ্চায়েতের ছত্রাগছ এলাকায় এক কিশোরীর মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখে এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

মৃতার পরিবারের অভিযোগ, গতকাল রাতে কিশোরীকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে আসে দুস্কৃতীরা। তারপর তাকে ধর্ষন করে বিষ খাইয়ে খুন করে। এই ঘটনায় ক্ষোভে ফেটে পড়েন ওই গ্রামের বাসিন্দারা। নারকীয় এই ঘটনার প্রতিবাদে এবং দোষীদের গ্রেফতারের দাবিতে রাজ্য সড়ক ও ৩১ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন গ্রামের বাসিন্দারা।

রাস্তায় লাঠিসোঁটা নিয়ে টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে পথ অবরোধ করে বিক্ষোভে শামিল হন গ্রামের কয়েকশো বাসিন্দা। বিক্ষোভকারীদের দাবি যতক্ষন অভিযুক্তদের গ্রেফতার না করা হবে ততক্ষন ৩১ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ চলবে।

মৃতার দাদা অভিযোগ করেছেন, তিনি একজন বিজেপি কর্মী। তৃনমূলের আশ্রিত দুস্কৃতি তার বোনকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষন করে বিষ খাইয়ে মেরে ফেলেছে। ঘটনাস্থল থেকে একটি সাইকেল, মোবাইল, উদ্ধার হয়। এই ঘটনার সাথে যুক্ত থাকা দুস্কৃতিদের শাস্তির দাবী জানিয়েছেন।

এদিকে ঘটনার খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে ছুটে আসে চোপড়া থানার বিশাল পুলিশবাহিনী। মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতালে পাঠানোর পাশাপাশি ঘটনার তদন্তে নেমেছে চোপড়া থানার পুলিশ।

অন্যদিকে, এই ঘটনা প্রেমজনিত বলে দাবি করেছেন উত্তর দিনাজপুর জেলা তৃণমূল সভাপতি তথা ইসলামপুরের বিধায়ক কানাইয়ালাল আগরওয়াল। এই ঘটনা প্রেমজনিত, এর সঙ্গে রাজনীতির কোন যোগ নেই বলে দাবি করেছেন কানাইয়ালাল আগরওয়াল।

আরও পড়ুন