ভারতে যেন না হয় টি২০ বিশ্বকাপ, আইসিসির কাছে দাবি পাকিস্তানের

ইউবিজি নিউজ ডেস্ক : ভারত থেকে বাতিল হোক বিশ্বকাপ। আইসিসির কাছে এমনটাই দাবি জানাতে চলেছে পিসিবি চেয়ারম্যান এহসান মানি। কেন এমন দাবি জানানো হবে? মানি জানিয়েছেন, ভারত সরকারের কাছ থেকে তাঁরা লিখিত প্রতিশ্রুতি চান, যাতে সবার ভিসার বন্দোবস্ত করা হয়।

আসন্ন ক্রিকেট বিশ্বকাপ হত বছর অস্ট্রেলিয়ায় আয়োজিত হওয়ার কথা ছিল। তবে অতিমারীর পরিস্থিতিতে তা ২০২২ সালে পিছিয়ে গিয়েছে। ভারতে নির্ধারিত সময়েই টি২০ বিশ্বকাপ আয়োজিত হওয়ার কথা রয়েছে। দুই দেশের সম্পর্কের বিষয়টি বিবেচনা করে আইসিসি বর্তমানে পাকিস্তানের টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণে যাতে কোনো সমস্যা না হয়, তা নিশ্চিত করতে চাইছে।

লাহোরে এহসান মানি সংবাদিকদের জানিয়েছেন, “পাকিস্তান সরকার আমাদের কখনোই বলেনি আমরা ভারতে খেলতে পারব না। আমরা আইসিসিকে জানিয়েছি আমরা অংশগ্রহণ করছি। আইসিসির কাছে আমরা জানিয়েছি, ভারত সরকারের কাছ থেকে কেবলমাত্র দল এবং স্কোয়াডের ভিসাই নয়, সাংবাদিক, সমর্থক, বোর্ড কর্তাদেরও ভিসা দিতে হবে। এই বিষয়ে যেন ভারত আমাদের লিখিত প্রতিশ্রুতি দেয়। আয়োজক দেশের চুক্তি অনুযায়ী এমনটা করতে ওরা বাধ্য।”

এরপরেই তিনি আইসিসিকে একহাত নিয়ে বলে দিয়েছেন, “আইসিসি আমাদের ২০২০-র ডিসেম্বরের মধ্যে এসব ব্যবস্থা করা হবে। কিন্তু এখনও তা হয়নি। এরপর জানুয়ারি, ফেব্রুয়ারিতে আরো একবার এই কথা জানিয়েছি। বলে দিয়েছি, মার্চের মধ্যেই গোটা বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে। তা না হলে ভারত থেকে ইউএই-তে টুর্নামেন্ট সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার দাবি জানাব আমরা।”

অভ্যন্তরীণ সম্পর্কের জেরে বর্তমানে দুই দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ বন্ধ রয়েছে। একমাত্র আইসিসি টুর্নামেন্টেই দুই দেশ পরস্পরের মুখোমুখি হয়।

এর আগে শ্যুটিং বিশ্বকাপে ভারত সরকার পাকিস্তান ক্রীড়াবিদদের ভিসা দিতে অস্বীকার করায় আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির পক্ষ থেকে নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়েছিল। পরে অবশ্য কেন্দ্রীয় সরকার ভিসা দিতে রাজি হওয়ায় সমস্যা মেটে।

আইসিসির সঙ্গে ভারতীয় বোর্ডের সমস্যা অন্যত্র রয়েছে। টি২০ বিশ্বকাপ আয়োজনে যদি কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে কর মকুব না করা হয়, তাহলে আইসিসি টুর্নামেন্ট অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যেতে পারে। সেই প্রেক্ষিতেই মানি বলেছেন, “আইনত, কেউ আমাদের বিশ্বকাপ অংশগ্রহণে বাধা দিতে পারে না। ভারত যদি টুর্নামেন্ট আয়োজনে ব্যর্থ হয়, তাহলে সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে তা শিফট করা হোক।”