Ad
দক্ষিণ বঙ্গ

বিধানসভা নির্বাচনে দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে ভোটে প্রার্থী মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী?

এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর রয়েছে

নন্দীগ্রাম, ২১ জানুয়ারিঃ ২০২১ বিধানসভার ভোটের প্রস্তুতি তুঙ্গে বলাই যায়। গত ১৮ জানুয়ারি নন্দীগ্রামে ক্যা-এর সমর্থনে অভিনন্দন যাত্রা করতে এসে বিজেপির রাজ্য সভাপতি তথা মেদিনীপুরের সাংসদ দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘২০২১ সালের বিধানসভায় প্রথম নন্দীগ্রাম বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপি বিধায়ক উপহার দিলাম। আমরা ২০২১ সালের বিধানসভায় নন্দীগ্রাম আসন জিততে চলেছি’।

দিলীপ ঘোষ আরও বলেন, ‘এখানকার বিধায়ক মন্ত্রীকে(শুভেন্দু অধিকারী ) বলে দিচ্ছি আপনি কোথায় দাঁড়াবেন ঠিক করে নিন কারণ নন্দীগ্রামে দাঁড়ালে আমরাই জিতব। সেদিন প্রথম থেকেই নন্দীগ্রামের বিধায়ক তথা মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীকে আক্রমণ করেন দিলীপ ঘোষ। আর আজ দিলীপ ঘোষের জবাব ফিরিয়ে দিলেন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী।

Ad

নন্দীগ্রাম কলেজ ময়দানে একটি উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসে মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী বলেন, ‘মেদিনীপুরের সাংসদ এসেছিলেন আমাকে পরামর্শ দিয়েছেন যে, পরের বছর বিধানসভা ভোটে জেন অন্য কোন জায়গা থেকে দাঁড়াই। আমার কোনো অসুবিধা নাই। মেদিনীপুরের সম্মানীয় সাংসদের কাছে অনুরোধ, তিনি ঠিক করে দিক আমি কোথায় লড়বো। যেই কেন্দ্রটা উনাদের কাছে সহজ আর আমার কাছে সবচেয়ে কঠিন সেই জায়গাটা দেখিয়ে দিতে হবে। না। কিন্তু শর্ত একটাই থাকবে, আমি আর উনি লড়বো অর্থাৎ (শুভেন্দু অধিকারী ও দিলীপ ঘোষ)। এই শর্তে উনি যদি রাজি থাকে আমিও রাজি আছি’।

বিধানসভা ভোট এখনো এক বছর বাকি থাকলেও এককথায় বিধানসভার আগে পশ্চিমবঙ্গ সরগরম দুই হেভিওয়েটের বাক যুদ্ধে। কারণ দিলীপ ঘোষের ছেড়ে যাওয়া দিলীপ ঘোষের খাসতালুক খড়গপুর বিধানসভায কেন্দ্রটি উপ নির্বাচনে বিজেপির কাছ থেকে ছিনিয়ে নিয়ে আসে তৃণমূল কংগ্রেস। সেই জয়ের সেনাপতি ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী।

আরও পড়ুন