বেঙ্গল সাফারি পার্কের নির্জন পরিবেশে খোশমেজাজে বাঘেরা, বাঘেদের এনক্লোজারে বসান হয়েছে খেলার সামগ্রী

শিলিগুড়ি, ৮ সেপ্টেম্বরঃ করোনা পরিস্থিতিতে দর্শক সাধারনের জন্য বন্ধ শিলিগুড়ির বেঙ্গল সাফারি পার্ক। দর্শক সাধারণের মনোরঞ্জন না হলেও সাফারি পার্কের বাঘেদের মনোরঞ্জনে খামতি নেই। খোশমেজাজেই আছে বন্যপ্রানীরা। বাঘেদের এনক্লোজারে বসানো হয়েছে বেশ কিছু খেলার সামগ্রী।

আর তা নিয়েই দিন রাত মেতে রয়েছে বেঙ্গল সাফারি পার্কের রয়াল বেঙ্গল টাইগার রিকা।  করোনা পরিস্থিতিতে লক ডাউনের পর থেকেই দর্শক সাধারনের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে বেঙ্গল সাফারি পার্ক। আর তার পর থেকেই শুধুই নির্জনতা পার্ক জুড়ে।

 আর এই নির্জন পরিবেশেই আনন্দেই দিন কাটছে বন্য প্রানীদের। এরই মাঝে সাফারি পার্কে এসেছে তিন নতুন অতিথি রয়াল বেঙ্গল টাইগার শিলা বিভাগের তিন নবজাত সন্তান। খোশ মেজাজে আছে শিলার আগের পক্ষের দুই সন্তান রিকা ও কিকা।

বেঙ্গল সাফারি পার্কে গেলেই দেখা যাবে নিজ নিজ এনক্লোজারে খেলায় মত্ত রয়াল বেঙ্গল টাইগার, চিতাবাঘ, ভাল্লুক থেকে শুরু করে প্রত্যেক বন্যপ্রাণীই। রয়াল বেঙ্গল টাইগার শিলাও ব্যাস্ত নিজের তিন সদ্যজাত রয়াল বেঙ্গল টাইগার শাবক কে নিয়ে।

অন্যদিকে প্রায় দুবছর বয়স হতে চলল শিলার দুই সন্তান রিকা কিকা। এবার এই দুই বাঘের জন্য মনোরঞ্জনের ব্যবস্থা করেছে সাফারি পার্ক কর্তৃপক্ষ। তাদের এনক্লোজারে বসানো হয়েছে নানা খেলার সামগ্রী। এখন সেগুলো নিয়েই দিন রাত খেলায় মত্ত হয়ে রয়েছে রিকা। তবে খেলায় অতটা আগ্রহ নেই কিকার। সে ব্যস্ত এনক্লোজারের জঙ্গলে আপন মনে ঘুরে বেড়াতে।

বেঙ্গল সাফারি পার্কের অধিকর্তা বাদল দেবনাথ জানিয়েছেন, সাফারি পার্কে রয়াল বেঙ্গল টাইগারদের জন্য বসান হয়েছে বাঘেদের মনোরঞ্জনের জন্য বেশ কিছু খেলার সামগ্রী। এতে তাদের যেমন মন ভাল থাকবে তেমনি শারীরিকভাবেও তাদের স্বাস্থ্যের অনেক উন্নতি হবে। শুধু রয়াল বেঙ্গল টাইগাররাই নয়, পার্কের নির্জন পরিবেশে খোশমেজাজেই আছে অন্য প্রানীরাও।