Ad
রাজনীতিরাজ্য

মহামারী আইনে গ্রেফতার দিলীপ-শুভেন্দু সহ একাধিক বিজেপি নেতা কর্মী

মহামারী আইনে গ্রেফতার করা হল রাজ্যের বিরোধী দলনেতা ও রাজ্য বিজেপি সভাপতিকে।

এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর রয়েছে

ইউবিজি নিউজ : ফের একবার খবরের শিরোনামে বঙ্গরাজনীতি। যার জেরে গ্রেফতার হলেন একাধিক নেতা কর্মী। ২১ সের বিধানসভা নির্বাচনের আগে তৃণমূলের মূল স্লোগান ছিল ‘খেলা হবে’ । এই স্লোগানকে হাতিয়ার করেই বিজেপির বিরুদ্ধে ভোটে লড়তে নেমেছিল তৃণমূল। এবং বলা বাহুল্য দারুন রেজাল্ট করে ভোটে জিতে তৃতীয়বারের জন্য ক্ষমতায় আসে তৃণমূল। আর এই স্লোগানের বিপুল জনপ্রিয়তার কারণে মুখ্যমন্ত্রী আগেই ঘোষণা করেছিলেন আজ অর্থাৎ ১৬ ই আগস্ট পালিত হবে ‘খেলা হবে দিবস’।

একদিকে আজকে তৃণমূল যখন ‘খেলা হবে দিবস’ নিয়ে মেতে আছে ঠিক তার পাল্টা কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে বিজেপির পক্ষ থেকেও। তাদের পক্ষ থেকে ‘পশ্চিমবঙ্গ বাঁচাও’ কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে। আর এই কর্মসূচি নিয়েই বেঁধেছে যতো গন্ডগোল।

Ad

এদিন রানী রাসমণি রোডে এই কর্মসূচিকে সামনে রেখে পুলিশের অনুমতি ছাড়ায় ধর্ণায় বসে বিজেপির বঙ্গ নেতৃত্ব। আর পুলিশের অনুমতি ছাড়াই ধর্ণায় বসায় কয়েক মিনিটের মধ্যেই হাজির হয় বিশাল পুলিশ বাহিনী। এর পরেই বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়ে বিজেপি নেতৃত্ব এবং পুলিশ। আর এর পরেই দিলীপ, শুভেন্দু সহ বিজেপির একাধিক নেতৃত্বকে গ্রেফতার করা হয়।

এপ্রসঙ্গে বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী বলেন, ‘বাংলার গণতন্ত্র কে গ্রেফতার করা হলো। অপরদিকে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের বক্তব্য , ‘আজ রাজ্য জুড়ে খেলা হবে দিবস পালন হচ্ছে, সেখানে ভিড় করছে হাজার হাজার মানুষ। তাতে তাদের কোন অসুবিধা হচ্ছে না। কিন্তু আমরা এক জায়গায় বসে শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ করতেই গ্রেফতার করা হলো আমাদের। ‘
প্রসঙ্গত, দিলীপ, শুভেন্দু, দেবশ্রী চৌধুরী, সায়ন্তন বসু সহ একাধিক নেতৃত্ব এবং যুব মোর্চার ও বেশ কিছু নেতৃত্ব গ্রেফতার হয়েছে। বর্তমানে তাদের লালবাজার সেন্ট্রাল জেলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন