Ad
রাজনীতি

‘পুলিশের রিভালবারে উনি কি কন্ডোম পরিয়ে রেখেছিলেন?’ মমতাকে অশ্লীল মন্তব্য বিজেপি সাংসদের

এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর রয়েছে

ওয়েব ডেস্ক: ধর্ষণ নিয়ে কবিতা লিখতে গিয়ে ত্রিশূলে কন্ডোম অনুষঙ্গ এনে হিন্দুত্ববাদীদের প্রবল আক্রমণের মুখে পড়েছিলেন কবি শ্রীজাত। অসমে রীতিমতো বিক্ষোভের মুখে পড়েন তিনি। কন্ডোমের মতো এক যৌন উদ্দীপক সামগ্রীকে ত্রিশূলের মতো একটি ধর্মীয় বিষয়ের সঙ্গে জুড়ে দেওয়ার রীতিমতো ধর্মীয় অবমাননার অভিযোগ আনা হয়ে হয়েছিল তার বিরুদ্ধে। প্রবল বিরোধিতা করেছিলেন বিজেপি নেতারাও। অথচ সিএএ পরবর্তী সময়ে রাজ্যে অশান্তি ও সেই বিষয়ে প্রশাসনিক ব্যর্থতার অভিযোগ তুলতে গিয়ে এবার স্বয়ং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে এমন মন্তব্য করলেন এরাজ্যের বিজেপি সাংসদ সাম্প্রতিক কুরুচিকর সমস্ত কথার রেকর্ডকে ভেঙে দিয়েছে।

বুধবার ময়ূরেশ্বরের কোটাসুরে ভাঙচুর  হওয়া দলীয় অফিস পরিদর্শনে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমণ করতে গিয়ে অশ্লীল কথার ফুলঝুরি ছোটালেন বাঁকুড়ার বিজেপি সাংসদ সুভাষ সরকার । যে মন্তব্য করেছেন, তাকে ঘৃণ্য বললেও কম বলা হয়।

Ad

কী বলেছেন বাঁকুড়ার বিজেপি সাংসদ? এদিন নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরোধিতায় মুর্শিদাবাদ সহ রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে বিক্ষোভের সময়ে যে অশান্তির ঘটনা ঘটেছে তার সমালোচনা করে সুভাষ বলেন, ‘দাড়িভিটে ছাত্ররা যখন বাংলার মাষ্টারমশাই চাইল, তাদের বুকে গুলি মেরে দিল। আর যখন জেহাদিরা, অনুপ্রবেশকারীরা ট্রেন ভাঙছে, পুলিশ মারছে, আরপিএফ মারছে তখন পুলিশের রিভালবারে-বন্দুকে তিনি কী লাগিয়ে রেখেছেন? পুলিশের রিভালবারে কি উনি কন্ডোম পরিয়ে রেখেছিলেন?’

নকশালবাড়ি আন্দোলনের সময়, সম্পূর্ণ ভিন্ন প্রেক্ষিতে, পুলিশের বন্দুকের নলে কন্ডোম পরানো আছে কিনা বলে বিতর্ক বাধিয়েছিলেন সিপিএম নেতা প্রমোদ দাশগুপ্ত। সেই বক্তব্য আজও সমালোচিত হয়। শ্রীজাতকেও সমালোচনায় মুড়ে দিয়েছিলেন বিজেপি নেতারা।

একজন মহিলাকে আক্রমণ করতে গিয়ে বাঁকুড়ার বিজেপি সাংসদের এমন অশ্লীল মন্তব্য নিয়ে নিন্দার ঝড় উঠেছে। কেউ-কেউ বলছেন, ‘আদিম যুগে ফিরে যাওয়া যে রাজনৈতিক দলের লক্ষ্য, তাঁদের কাছ থেকে এর চেয়ে সভ্য মন্তব্য কী করে আশা করা যায়?’ বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ তাঁর দলের গুণধর সাংসদের এমন মন্তব্য নিয়ে কোনও প্রতিক্রিয়া দিতে রাজি হননি। কেউ আবার বলছেন, এমন কুরুচিকর মন্তব্যেই নিজের জাত-পরিচয় সব বুঝিয়ে দিয়েছেন বাঁকুড়ার বিজেপি সাংসদ।’

নকশালবাড়ি আন্দোলনের সময়েও প্রয়াত সিপিএম নেতা প্রমোদ দাশগুপ্ত পুলিশের বন্দুকের নলে কন্ডোম লাগানো রয়েছে কিনা বলে বিতর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন। আজও তা নিয়ে চর্চা হয়। তবে প্রমোদবাবু গুণধর সুভাষের মতো কোনও মহিলা প্রশাসককে আক্রমণ করতে গিয়ে ওই মন্তব্য করেননি।

আরও পড়ুন