Ad
রাজনীতি

বেইমানি করেছে BJP, বিশ্বাসঘাতকতা করেছে কাঁকড়ার দল ‘! বিস্ফোরক বাবুল সুপ্রিয়

এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর রয়েছে

ইউবিজি নিউজ ডেস্ক : সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দিয়েই প্রাক্তন দল সম্পর্কে মুখ খুললেন বাবুল সুপ্রিয় (Babul Supriyo)। বৃহস্পতিবার একটি ফেসবুক পোস্টে BJP সম্পর্কে বিস্ফোরক মন্তব্য করেছেন তিনি।

তাঁর অভিযোগ, BJP তাঁর সঙ্গে বেইমানি করেছে। বিশ্বাসঘাতকতা করেছে। বদলে বহিরাগতদের চাটার্ড প্লেনে চড়িয়েছে। তবে তিনি জানিয়েছেন, BJP-র জন্য তিনি যা করেছেন, তার জন্য বাবুল গর্বিত। পাশাপাশি, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) সম্পর্কে প্রশংসাসূচক বার্তাও মিলেছে বাবুলের পোস্টে।

Ad

সদ্য প্রাক্তন সাংসদের তকমা বসেছে তাঁর নামের পাশে। এদিন ফেসবুকে নিজের ভিজিটিং কার্ডের একটি ছবি পোস্ট করে কিছুটা আবেগঘন হয়ে পড়েন বাবুল সুপ্রিয়। কার্ডে সাংসদ পদের পাশে প্রাক্তন কথাটি পেন দিয় বসিয়ে নিয়েছেন তিনি। স্মৃতিচারণার পাশাপাশি করে BJP-র বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিতেও দেখা গিয়েছে বাবুলকে। পোস্টে তিনি লেখেন, ‘ছোটবেলায় শুনেছিলাম, যদি নিজের মন ও হৃদয় বলে কেউ অন্যায় ভাবে তোমাকে দশ টাকা জরিমানা দিয়েছে তাহলে জরিমানাটা না দিয়ে আদালতে লড়াই করো। দরকার হলে একশো টাকা খরচ করে সেই জরিমানা প্রত্যাহার করাও। অন্যায়ভাবে করা জরিমানা কখনোই মেনে নেবে না, মেনে নিইনি আর তাই আড়াই বছর বাকি থাকা সত্ত্বেও BJP-র হয়ে জেতা সাংসদ পদ ছেড়ে দিতে একটুও দ্বিধা করিনি।’

একইসঙ্গে বাবুল এদিন উল্লেখ করেন, ‘১৯৯২ সালে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের নিরাপদ চাকরি ছেড়ে মুম্বই যাওয়ার সময়ও আমি ভয় পাইনি। আজও পাইনা। BJP থেকে যিনি আমাকে নৈতিকতার জ্ঞান দিচ্ছেন তাঁকে বলবো, নিজের বাড়ির অন্দর থেকে পাঠটা শুরু করতে। আর শিরদাঁড়া সোজা করে দাঁড়িয়ে আমি যা করতে পেরেছি তা আগে করে দেখাতে তারপর যা বলার বলতে।’ একইসঙ্গে বাবুলের কটাক্ষ, ‘কাঁকড়ায় ভরা একটি দল। যারা নিজেদের প্রকৃত কর্মীদের সাথে নির্লজ্জ বিশ্বাসঘাতকতা বেইমানি করে আর বহিরাগতদের চার্টার্ড প্লেনে চড়ায়। সেই BJP-র জন্য ২০১৪ সাল থেকে যেটুকু করেছি তাতেও আমি যেমন গর্বিত, আজ অন্যায়ের প্রতিবাদ করে আড়াই বছর বাকি থাকতেও BJP-র টিকিটে BJP-র জন্য জেতা সাংসদ পদ নির্দ্বিধায় ছেড়ে দিতে পেরেও আমি সমান গর্বিত।

পাশাপাশি আসানসোলবাসীর জন্যও বিশেষ বার্তা দিয়েছেন বাবুল সুপ্রিয়। তিনি লেখেন, ‘আপনারা BJP-র ধান্দাবাজগুলির কথায় কান দেবেন না। রাজনীতিতেও ঢুকবেন না। আমি আপনাদের ছিলাম, আছি, থাকব। আগামীদিনে মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী, যিনি অত্যন্ত স্নেহের সঙ্গে আমাকে সব ভুলে শুধুমাত্র বাংলার মানুষের কাজ মন দিয়ে করতে উদ্বুদ্ধ করে আবার ‘Public Service’-এ ফিরিয়ে এনেছেন, তাঁর নেতৃত্বে আরও অনেক কাজ করে দেখাব। আপনারা আমার জন্য সবসময়েই বিশেষ ছিলেন ও থাকবেন। আপনাদের জন্য সবসময়েই কিছু না কিছু একস্ট্রা করার চেষ্টা করব।

বাবুলের এই পোস্টের জবাবে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি জিতেন্দ্র তিওয়ারি (Jitendra Tiwari)। BJP নেতার প্রশ্ন, ‘মন্ত্রিত্ব চলে যাওয়াটা যদি জরিমানা হয় তাহলে বিনা পরিশ্রমে রামদেব বাবার সুপারিশে এবং মোদিজীর জনপ্রিয়তায় সাংসদ হওয়াটা, লটারিতে প্রাইজ পাওয়ার মত নয় কি?’

আরও পড়ুন