নাগরিকত্ব আইনের বিরোধিতা করায় মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে হাইকোর্টে মামলা বিজেপির

UBG NEWS: এ রাজ্যে সিএবি-এনআরসি লাগু হতে দেবেন না। প্রথম থেকেই কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে এসেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এমনকি কেন্দ্রের নয়া আইন হিসাবে সিএবি আত্মপ্রকাশ করলেও বাংলায় সেই আইন মানা হবে না বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সমর্থন জানান কেরল, মধ্যপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র, ছত্তিসগড়ের মতো রাজ্যগুলোও।

কেন্দ্রের এই আইনের বিরোধিতা করায় মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে সরব হন পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপালও। রবিবার এ বিষয়ে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়ে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর বলেন, “রাজ্যে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন কার্যকর হবে না বলে বিজ্ঞাপন দেওয়া হচ্ছে। এটা কীভাবে বলা যেতে পারে? এমন ঘটনা নিয়ে রাজনীতি করা উচিত নয়। মানুষের করের টাকায় আইনবিরুদ্ধ কাজ। এটা সংবিধান অনুমোদন দেয় না।” এমনকি এই কাজকে ‘অসাংবিধানিক’ বলেও ব্যাখ্যা করেছেন তিনি।

কেন্দ্রীয় আইনের বিরোধিতা করায় এবার মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে জনস্বার্থ মামলা দায়ের হল কলকাতা হাইকোর্টে। কেন্দ্রীয় আইনের বিরুদ্ধে কেন সরব হয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়? এই মর্মে মামলা দায়ের করেছেন কলকাতা হাইকোর্টের আইনজীবী সরজিৎ রায়চৌধুরী।

তাঁর বক্তব্য, “কেন্দ্রীয় আইনের বিরুদ্ধে কেন সরব হচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী? কেন্দ্র-রাজ্য সম্পর্ক তলানিতে এসে ঠেকেছে। গোটা রাজ্যে এর জন্য অশান্তি ছড়াচ্ছে।”

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে উত্তাল বাংলা। সপ্তাহের প্রথম দিনেও রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে চলছে অবরোধ, বিক্ষোভ। কোথাও রাস্তায় বসে চলছে প্রতিবাদ। কোথাও আবার রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে চলছে অবরোধ। কয়েকটি জায়গায় ওভারহেডের তারে কলাপাতা ফেলে রেল অবরোধ। সপ্তাহের প্রথম দিনে কাজে বেরিয়ে চূড়ান্ত দুর্ভোগের শিকার সাধারণ মানুষ।

শুরু থেকেই এনআরসি ও নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে সরব মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় । কেন্দ্রের আইন এরাজ্যে কোনওভাবেই কার্যকর করতে দেবেন না বলে হুঁশিয়ারি দিয়ে চলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় । কেন্দ্রের আইনের বিরোধিতায় শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের পরামর্শ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। সংবিধান না মেনেই কেন্দ্রীয় সরকার আইন তৈরি করেছে বলেও অভিযোগ মুখ্যমন্ত্রীর। কেন্দ্রের আইনের প্রতিবাদে নিজেও পথে নেমেছেন তৃণমূলনেত্রী। সোমবার বিআর আম্বেদকরের মূর্তি থেকে জোড়াসাঁকো পর্যন্ত তৃণমূলের প্রতিবাদ মিছিল।

‘বাংলায় কোনওভাবেই এনআরসি ও সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন বরদাস্ত নয়। গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে কেন্দ্রীয় আইনের প্রতিবাদ জানানো হবে,’৷ সোমবার মিছিল শুরুর আগেই তৃণমূলের জমায়েতে আরও একবার ঘোষণা করেন তৃণমূলনেত্রী। জমায়েতে উপস্থিত সকলকেই শপথ বাক্য পাঠ করান তৃণমূল সুপ্রিমো। কেন্দ্রীয় পদক্ষেপের বিরুদ্ধে আগামিকালও কর্মসূচি তৃণমূলের৷ মঙ্গলবার যাদবপুর এইট-বি বাসস্ট্যান্ড চত্বর থেকে শুরু হবে তৃণমূলের মিছিল। মিছিলের নেতৃত্বে থাকবেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়। যদুবাবুর বাজার পর্যন্ত যাবে তৃণমূলের প্রতিবাদ মিছিল।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই পদক্ষেপের সমালোচনায় সরব বিজেপি। রাজ্যের মুখ্য়মন্ত্রী কীভাবে কেন্দ্রের আইনের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে বলছেন তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিজেপির আইনজীবী। কলকাতা হাইকোর্টে মুখ্য়মন্ত্রীর বিরুদ্ধে দায়ের জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়। প্রধান বিচারপতিকে এবিষয়ে হস্তক্ষেপের আবেদন জানান বিজেপির আইনজীবী সরজিৎ রায়চৌধুরী । বিজেপির আইনজীবীর জনস্বার্থ মামলা দায়েরের অনুমতি দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট৷

এই পরিস্থিতিতে প্রধান বিচারপতির হস্তক্ষেপের দাবি করেন তিনি। এদিন সরজিৎবাবু জনস্বার্থ মামলা দায়ের করার জন্য আবেদন জানিয়ে হাইকোর্টে অনুমতি চাইলে তাঁর সেই আবেদন মঞ্জুর হয়।