কোচবিহারের বিজেপি সাংসদ নিশীথ প্রামানিককে তুলোধোনা দেবাংশুর

কোচবিহার, ৫ জানুয়ারিঃ ‘শুধুমাত্র প্রতিশ্রুতি, আর করা সুরক্ষা বলয়ের মধ্যে থেকে মানুষের কাজ করা যায় না। মানুষের কাজ করতে হলে মানুষের মাঝে দাঁড়িয়ে করতে হয়’। তুফানগঞ্জ নাককাটিতে কেন্দ্রীয় কৃষি বিল বিরোধী জনসভায় কুচবিহারের সাংসদ নিশীথ প্রামানিককে এই ভাবেই আক্রমণ করলেন তৃণমূল মুখপাত্র তথা তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক দেবাংশু ভট্টাচার্য।

চারদিনের কোচবিহার সফরের প্রথম দিন বিজেপির অন্যতম শক্ত ঘাঁটি হিসেবে দাবি করা তুফানগঞ্জ নাককাটি গাছ হাই স্কুলের মাঠে কয়েক হাজার কর্মী সমর্থকের সামনে প্রথম বক্তব্য রাখেন দেবাংশু। তিনি বলেন, “১০ বছরের শাসনকালের তৃণমূল কংগ্রেসের অন্যতম বড় হাতিয়ার উন্নয়ন। মানুষের জন্য ক্রমাগত পরিষেবা দিয়ে গিয়েছে এই সরকার। ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনে উন্নয়নকে পাথেয় করে মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছাবে দল”।

এদিন প্রকাশ্য জনসভায় সাংসদ নিশীথ প্রামাণিকের বিরুদ্ধে মুখ খুললেন তিনি। তিনি বলেন, “যে সমস্ত প্রতিশ্রুতি কেন্দ্রীয় সরকার দিয়েছিল তার কোনো বাস্তব রূপ কোচবিহার সহ গোটা উত্তরবঙ্গে দেখা যায়নি। জেড ক্যাটাগরীর সিকিউরিটি আবদ্ধ হয়ে মানুষকে শুধুমাত্র ভাওতা দেওয়া যায় উন্নয়ন করা যায় না।

কোচবিহারের রাজবংশী সম্প্রদায়ের জন্য বড় বড় বুলি আউড়ে ছিলেন সংসদ, কিন্তু রাজবংশীদের জন্য উন্নয়নটা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আগামী দিনে এই উন্নয়নকে সামনে রেখেই একুশের নির্বাচন করবে শাসকদল। নিশীথ প্রামানিক, অমিত শাহ, দের সাথে দেখা হবে লড়াইয়ের ময়দানে। একদিকে উন্নয়ন আরেকদিকে জনগণ। দেখাই যাক না কার পাল্লা বেশি থাকে নির্বাচনে”।

জনসভার পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্মদিন পালন করেন দেবাংশু। ছিলেন জেলা তৃণমূল সভাপতি পার্থ প্রতিম রায়, এলাকার বিধায়ক ফজল করিম মিয়া, শহর ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি শিবু পাল, অঞ্চল এবং গ্রামের অন্যান্য নেতৃত্ববৃন্দ।