Ad
উত্তরবঙ্গ

পাল্টা হামলার ঘটনায় তৃণমূল ও বিজেপি কর্মীদের মধ্যে ব্যাপক উত্তেজনা দিনহাটায়

এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর রয়েছে

দিনহাটা : হামলা, পাল্টা হামলার ঘটনায় তৃণমূল ও বিজেপি কর্মীদের মধ্যে ব্যাপক উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে সিতাই বিধানসভার অন্তর্গত ভেটাগুড়ি ২ গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় রাতভর বোমাবাজী বাড়ি ভাঙচুর ও দোকানপাট লুটপাটের অভিযোগ উঠেছে। তৃণমূলের অভিযোগ, সেখানে তাঁদের ৪ সমর্থকের বাড়ী ভাংচুর করেছে বিজেপির দুষ্কৃতীরা।

অন্যদিকে বিজেপির অভিযোগ, তাঁদের কর্মী সমর্থকদের মারধোর ও এক কর্মীর দোকান লুট করার করেছে তৃণমূলের দুষ্কৃতিরা। ওই ঘটনার জেরে এলাকায় রাত থেকেই উত্তেজনা ছড়ায়। রাতেই ঘটনার খবর পেয়ে ছুটে যায় দিনহাটা থানার বিশাল পুলিস বাহিনী। তার জেরে থমথমে গোটা এলাকা। যদিও ওই ঘটনায় একে অপরের দিকে অভিযোগের আঙুল তুলেছে তৃণমূল- বিজেপি দুই পক্ষই।

Ad

পুলিস ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার রাত ২ টা নাগাদ একদল দুষ্কৃতি সিঙ্গিজানি এলাকায় গিয়ে তৃণমূলের চার কর্মীর বাড়িতে গিয়ে বোমাবাজির পাশাপাশি তাদের বাড়িতে হামলা চালিয়ে বাড়ীঘর ভাঙচুর করে পালিয়ে যায়। পরে অন্য একদল দুষ্কৃতি এলাকায় ঢুকে রাস্তার ধারে থাকা এক বিজেপি কর্মীর দোকানে হামলা চালায়। অভিযোগ দুষ্কৃতীরা বোমাবাজি, বাড়ীঘর ভাঙচুরের পাশাপাশি তীর ধনুক নিয়েও চড়াও হয়। হামলার সময় কোন ক্রমে বাড়ী ছেড়ে পালিয়ে প্রানে বাড়ির লোকজন।

তৃণমূলের অভিযোগ, মোদীর সভা থেকে ফিরে বিজেপির লোকজন সিঙ্গিজানি গ্রামে সউদা বর্মনকে মারধর করে। মধ্যরাতে তৃণমূল কর্মী স্বপন বর্মন, মানিক চাকী, সুখধন দেবনাথ, সঞ্জিত মণ্ডলের বাড়ীতে হামলা চালায় বিজেপির দুষ্কৃতীরা। তারা এলাকায় ব্যাপক বোমাবাজি করে। ভোটের আগে তারা এলাকায় সন্ত্রাস তৈরি করার চেষ্টা করছে। যদিও বিজেপির পাল্টা অভিযোগ, তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা রাতের অন্ধকেরে বোমাবন্দুক নিয়ে এসে এলাকায় বোমাবাজি করে বিজেপির এক কর্মীর দোকানে হামলা চালায়। ঘটনার মোড় ঘুরাতে তারা নিজেদের দলের কর্মীদের বাড়িতে নিজেরাই হামলা চালিয়ে বিজেপির ঘাড়ে দোষ চাপাচ্ছে।

তৃণমূল কর্মী স্বপন বর্মন বলেন, গতকাল রাতে আমার বাড়িতে বোমাবাজি করে হামলা চালিয়ে ঘরের বেড়া ভেঙ্গে দিয়ে দিয়েছে। এর আগেও মাস ছয়েক আগে আমার বাড়ী ভাঙচুর করেছিল বিজেপির দুষ্কৃতীরা। গতকাল রাতে আমার বাড়ী ছাড়াও এলাকার আরও কয়েকজন তৃণমূলের কর্মীর বাড়িতে ভাঙচুর করেছে।

বিজেপি কর্মী সুধীর শাকারি বলেন, মোদীর মিটিং এ যাওয়ায় জন্য রাতে তৃণমূলের কিছু দুষ্কৃতি বোম, বন্দুক নিয়ে এসে আমার বাড়িতে হামলা করে। আমার ছেলেকে মারধর করে। বাড়ির সাথে থাকা দোকানের ঝাপেও হামলা চালায়। আতঙ্কে বাড়ির লোকজন পালিয়ে কোন রকমে প্রানে বাঁচে। প্রতিদিনেই এলাকায় বোমাবাজি করা হয়। পুলিস আজকেও বেশকিছু তীর উদ্ধার করে নিয়ে গেছে। এবিষয়ে দিনহাটা থানার আইসি সঞ্জয় দত্ত বলেন, রাতেই পুলিস ঘটনাস্থলে গিয়েছিল। ঘটনার তদন্ত করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন