ভোটের আগেই হিন্দি ভাষীদের কাজে লাগাতে আগ্রহী শাসক দল, কোচবিহার জেলায় গঠিত হলো হিন্দি ভাষী সেল

কোচবিহার:- সামনেই ২১ এর নির্বাচন, তার আগে জোর কদমে পাল্লা দিয়ে চলছে শাসক – বিরোধী সব শিবির এর প্রচার।

প্রচার – পাল্টা প্রচার, তৃণমূল কে শাসন থেকে উৎখাত করতে কোমর বেধে নেমে পড়েছে ভারতীয় জনতা পার্টি, অপরদিকে ২১ এ ঘুরে দাড়ানোর লক্ষ্যে জুটি বেধেছে বাম কংগ্রেস।

ঠিক তেমনভাবেই ১০ বছর ধরে রাজ্য শাসনে উন্নয়নের খতিয়ান নিয়ে আবারও ক্ষমতায় ফিরে আসতে মরিয়া শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস।

ভোট ব্যাংক সামলানোর কোনো কসুর ই ফাঁকা রাখতে চায় না মমতা ব্যানার্জির দল।তাই লোকসভা ভোটের ফলাফল এর দিকে নজর রেখে শক্তিশালী হতে চাইছে তৃণমূল সুপ্রিমো।আবার এক এক করে একঝাঁক নেতৃত্ব রা বেরিয়ে যাচ্ছে তৃণমূল ত্যাগ করে। সেদিকে কার্যত পাত্তা না দিয়ে সাংগঠনিক দিক দিয়ে তৃণমূল কংগ্রেস কে শক্তি শালী এবং সঙ্গবদ্ধ করতে রাজনৈতিক ময়দানে তৃণমূল কংগ্রেস।

তাই ভোটের আগে সংগঠন কে আরো বেশি শক্তিশালী করতে হিন্দি ভাষী দের একত্রিত করতে চাইছে তৃণমূল কংগ্রেস।হিন্দি ভাষা মানুষদের একত্রিত করতে গিয়ে কোচবিহার জেলায় সোমবার প্রথম বার হিন্দি ভাষী সেল গঠন করল জেলা তৃণমূল কংগ্রেস।এই ক্ষেত্রেও মমতা ব্যানার্জির ১০ বছরের উন্নয়ন কেই হাতিয়ার করবে হিন্দি ভাষী সেল।

সোমবার কোচবিহারে হিন্দি ভাষী কমিটির বৈঠক হয় কোচবিহার সহিত্যসভায়। সেখানে কোচবিহার জেলা সভাপতি হিসেবে মণীশ কুমার বানিয়া কে দায়িত্ব দেয় জেলা তৃণমূল সংগঠন।

সেখানে কোচবিহার জেলা তৃণমূলের সভাপতি পার্থ প্রতিম রায় এবং হিন্দি ভাষী সেলের উত্তরবঙ্গের আহ্বায়ক সঞ্জয় শর্মা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে সাংবাদিক দের সন্মুখীন হয়ে সঞ্জয় বাবু জানান,রাজ্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়ন ছড়িয়ে পড়েছে সর্বত্র,বাদ যায়নি হিন্দি ভাষী মানুষরা।

উন্নয়ন থেকে পরিকাঠামো, শিক্ষা থেকে সাস্থ্য কোনো ক্ষেত্রেই বঞ্চিত নন তারা।আসলে হিন্দি ভাশির মানুষরাও বাংলার উন্নয়নের বিশেষ করে ব্যবসায়িক ক্ষেত্রের অন্যতম কান্ডারী।তাই সঞ্জয়বাবুর দাবি আসল রাম রাজ্য তৈরি করছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আগামী ২৭ শে ফেব্রুয়ারি কোচবিহারে আস্তে চলেছে তৃণমূল কংগ্রেসের হিন্দি সেলের রাজ্য সভাপতি বিবেক গুপ্তা বলে জানান তিনি।

তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি পার্থ প্রতিম রায় বলেন, মমতা ব্যানার্জী মানুষ দের জন্য বিগত দশ বছরে যে উন্নয়ন করেছেন তাকে সামনে রেখেই প্রচার চালাবে তৃণমূল কংগ্রেস। কমিটি এখন গঠিত হলো কিন্তু মমতা ব্যানার্জী অনেক আগেই উন্নয়ন করে গেছেন হিন্দি মানুষদের জন্য।