আমার কাছে বিজেপিতে যাওয়ার অনেক অফার, তৃণমূলের ক্ষতি করছে দলের কর্মীরাই, মুখ্যমন্ত্রী গেলে আমিও বিজেপিতে যাব, বিস্ফোরক দিনহাটার বিধায়ক উদয়ন গুহ

ইউবিজি নিউজ, দিনহাটা : “মমতা বন্দোপাধ্যায় যদি বিজেপিতে যান, তবেই আমি বিজেপিতে যাব’’। দিনহাটা ৭ নং বিধানসভায় বালিকা এলাকায় একটি দলীয় কর্মী সভায় যোগ দিয়ে এমনি বিস্ফোরক মন্তব্য করে তৃণমূল বিধায়ক উদয়ন গুহ।

দলীয় সভায় প্রকাশ্যে বললেন, তাঁর কাছে বিজেপিতে (BJP) যাওয়ার অনেক অফার আছে। শুধু তাই নয়, দলীয় সভা থেকে তিনি আরও দাবি করলেন, তৃণমূলের (TMC) ক্ষতি করছে তৃণমূলের লোকেরাই।

সম্প্রতি তিনি কলকাতায় গিয়েছিলেন। সেখানে প্রায় ব্যক্তিগত কাজে প্রায় ১০ দিনে কাটিয়ে এসেছেন। আর তারেই মাঝে উদয়ন বিরোধী শিবির তাঁকে নিয়ে বলতে শুরু করেছে উদয়ন বাবু দিনহাটায় সিট পাবেন না তাঁকে কোচবিহার দক্ষিন বিধানসভা কেন্দ্র থেকে দাঁড় করাবে দল থেকে। আবার কেউ ভাবছে টিকিট না পেলে তিনি বিজেপিতে যাবেন। এই সব রটিয়ে তাঁর নামে বদনাম দেওয়ার পেছনে বিজেপি নয় এর পিছনেও তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা রয়েছে বলে এদিন উদয়ন গুহ তোপ দাগেন।

তাঁর সাফ কথা, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamamta Banerjee) যদি বিজেপিতে যান, তবেই একমাত্র তিনি বিজেপিতে যাবেন।”উদয়ন গুহ এদিন বলেন, “দল ছেড়ে যে-ই যাক না কেন, যেখানেই যাক না কেন, কোচবিহারে তৃণমূলের কেউ ক্ষতি করতে পারবে না। ক্ষতি করতে পারবেন কারা? আমাদের দলের মধ্যে আছেন যাঁরা। এই মিটিংয়ে কারা কারা আসেননি, তা লক্ষ্য করা হোক। আমি বলব, কারও বাঁহাতে ভোট আমার লাগবে না। খাওয়ার সময় ডান হাতে, আর ভোট দেওয়ার সময় বাঁ হাতে? আমাকে দল প্রার্থী করলে, আমি ডান হাতের ভোটেই জিতবার চেষ্টা করব। বাঁহাতের ভোটের আমার প্রয়োজন নেই। দিনহাটার ১৫ জনের কমিটির মধ্য়ে আজ ১০ জন এসেছেন। বাকিরা কেউ আজকের মিটিংয়ে আসনেনি। তাঁরা ডান হাত তো দূরের কথা, বাঁহাতেও ভোট দেবেন না।”

এরপরই অনুপস্থিত নেতাদের উদ্দেশে উদয়ন গুহকে (Udayan Guha) হুঁশিয়ারি দিতে শোনা যায়। তিনি বলেন, “তলে তলে গর্ত খোঁড়ার চেষ্টা করবেন, পিঠের চামড়া উদয়ন গুহর আগে আপনার যাবে।” তোপ দাগেন, “গত ১০ দিন কলকাতায় ছিলাম, এখানে রটানো হয়েছে যে উদয়ন গুহ BJP-তে যেতে পারে। এমনও হতে পারে যে উদয়ন গুহ টিকিট পাবে না, তাঁকে কোচবিহার দক্ষিণে দিতে পারে, তাই ধরাধরি করতে গিয়েছে, টাকাপয়সা দিতে গিয়েছে, যাতে দিনহাটায় পেতে পারে। পুরসভার প্রশাসক পদ চলে যাবে, তাই ধরে রাখার জন্য টাকাপয়সা দিতে গিয়েছে। এসব কারা বলছে, বিজেপি বলেনি। বলছেন তৃণমূলের নেতা কর্মীরা।”

আর তাঁর এই বক্তব্যের মধ্যে দিয়ে স্পষ্ট যে কোচবিহার জেলায় যে এখন তৃনমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব আছে। আগামী ১৬ তারিখ কোচবিহার জেলায় দলীয় কর্মসূচীতে আসবেন। তাঁর আগে উদয়নের এই মন্তব্য কার্যত দলকে আরও অস্বস্তিতে ফেলে দেবে বলে রাজনৈতিক মহলের ধারনা।