Ad
উত্তরবঙ্গ

চালু হচ্ছে উত্তরবঙ্গ থেকে অসমে সরকারি বাস পরিষেবা, শীঘ্রই শুরু করতে তৎপর রাজ্য সরকার

এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর রয়েছে

ইউবিজি নিউজ ডেস্ক : পূর্ব ভারতের অন্যতম প্রবেশদ্বার হল শিলিগুড়ি। অসম, ত্রিপুরা কিংবা মণিপুরের মত রাজ্যগুলিতে যেতে ব্যবহার করতে হয় শিলিগুড়িকে।

দীর্ঘবছর আগে অসম যাওয়ার জন্য সরকারি বাস ছিল শিলিগুড়ি থেকে। যা যাত্রীর অভাবে ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য বন্ধ হয়ে যায়। কিন্তু বর্তমানে পরিস্থিতি ভিন্ন, শুধু ঘুরতেই নয়, এখন মানুষ পূর্বের রাজ্যে যাচ্ছে কর্মসূত্রে, যার মধ্যে প্রধান অসম।

Ad

তাই আবার উত্তরবঙ্গ থেকে অসমে সরকারি বাস পরিষেবা চালাতে উদ্যোগ নিচ্ছে রাজ্য সরকার।

এই বিষয়ে উত্তরবঙ্গ পরিবহন নিগমের চেয়ারম্যান পার্থপ্রতিম রায় জানিয়েছেন, ‘কোচবিহার এবং আলিপুরদুয়ার থেকে অসমমুখী বেসরকারি বাস চলাচল বজায় থাকলেও এই মুহূর্তে করোনার জন্য বন্ধ আছে। এটা সাময়িক সমস্যা। কিন্তু প্রায় ১০ বছর হল এই রুটে সরকারি বাস পুরোপুরি বন্ধ আছে। অসম যেহেতু উত্তরবঙ্গের একেবারেই কাছে তাই এই রুটটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ রুট। কারণ, চিকিৎসা ও ব্যবসায়ীক প্রয়োজন ছাড়াও অসম থেকে উত্তরবঙ্গে বা উত্তরবঙ্গ থেকে অসমে বহু লোক তাঁদের আত্মীয়-স্বজনের বাড়ি বেড়াতে আসেন। আগে এই রুটটিতে দিনে ছ’টার মতো সরকারি বাস চলত। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পর ফের যাতে এই রুটটিতে বেসরকারি বাসের সঙ্গে সরকারি বাসও চালানো যায় সেবিষয়ে রুটের বর্তমান হালহকিকত নিয়ে খোঁজ নেওয়া হচ্ছে।’

এই পরিষেবা চালু হলে উপকার হবে বলেও জানিয়েছেন পার্থপ্রতিম। কিন্তু দীর্ঘদিন এই রুট থাকলেও বামেরা সর্বনাশ করে সরকারি বাসগুলির। অভিযোগের সুরে পার্থপ্রতিম রায় জানিয়েছেন, ‘বাম আমলে এই রুটটির অবস্থা অত্যন্ত শোচনীয় হয়ে পড়েছিল। বাসগুলো হয়ে পড়েছিল অতি পুরনো। ড্রাইভার বা কন্ডাকটরদের সংখ্যাও ছিল খুবই কম।

কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জীর নির্দেশ অনুযায়ী কাজের জন্য পরিস্থিতির ফের উন্নতি হতে থাকে। সেজন্যই ফের এই রুটে সরকারি বাস চালানোর কথা ভাবা হচ্ছে এবং সেই সংক্রান্ত খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে।’

জানা গিয়েছে উত্তরবঙ্গ পরিবহন নিগমের উদ্যোগে ৬০ টি নতুন বাস দফতরের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের কাছে চেয়েছেন পার্থপ্রতিম রায়। এছাড়াও দীর্ঘদিন বসে থাকা কিংবা বেসরকারি বাসে কন্ডাক্টারি করা ও ড্রাইভারি করা কর্মীদের বকেয়া মাইনে দিয়ে সরকারি বাস চালানোর উদ্যোগ নিচ্ছেন নবনিযুক্ত চেয়ারম্যান।

আরও পড়ুন