কোচবিহারে দম্পতিকে কুপিয়ে খুন, ঘটনাস্থলে বিশাল পুলিশবাহিনী, আটক ১

কোচবিহার, ১৭ ফেব্রুয়ারি : বুধবার সকালে কোচবিহার তুফানগঞ্জ মহকুমার মারুগঞ্জ বেলাকোবা এলাকায় এক দম্পতিকে কুপিয়ে খুন করার অভিযোগে চাঞ্চল্য ছড়ালো। মৃত ব্যক্তির নাম জরিফা বিবি(৫০)।

তার সাথে আহত হয়েছেন তার স্বামী আলী হোসেন। ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য এলাকায়।

ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে তুফানগঞ্জ থানার পুলিশ, প্রাথমিক তদন্ত সেরে প্রধান অভিযুক্ত শহিদুল মিয়াকে আটক করেছে পুলিশ। জেলা পুলিশ সূত্রে জানানো হয়েছে ঘটনার পুনঃ তদন্ত চলছে।

ইতিমধ্যেই ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তরের ভারপ্রাপ্ত মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ।

তিনি মন্তব্য করে বলেছেন উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে এই হত্যাকাণ্ড চালানো হয়েছে। পুলিশ পুনঃতদন্ত করুক এই দাবি করেছেন তিনি।

স্থানীয় সূত্রে জানানো হয়েছে কালো কাপড় দিয়ে মুখ ঢেকে ঘরে ঢুকে এই দম্পতিকে কোপানো হয়েছে ধারালো অস্ত্র দিয়ে। জরিফা বিবির সারা শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তার দেহ থেকে মাথা আলাদা অবস্থায় পাওয়া গেছে বলে জানানো হয়েছে।

অপরদিকে তার স্বামী আলী হোসেন গুরুতর ভাবে আহত, তাকে কোচবিহার মহারাজা জিতেন্দ্র নারায়ান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার অস্ত্রোপচার চলছে বলে হাসপাতাল সূত্রে জানানো হয়েছে।

জরিফা বিবির মেয়ে রোজা বানু জানান, দীর্ঘদিন থেকেই পরিবারের আত্মীয়দের সাথে পারিবারিক অশান্তি চলছিল। একাধিকবার তার পরিবারের উপরে আক্রমণ হয়েছে। ২ মাস আগে জানলা দিয়ে আক্রমণ চালানো হয়েছিল। সেই সময় বিষয়টি ধামাচাপা পড়ে যায়। এর আগেও গরু বাধা নিয়ে পরিবারের মানুষের সাথে ঝামেলা হয়েছিল।

অভিযোগ সেই সময় পুলিশকে জানানো হলেও পুলিশ কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। পুলিশ সেই সময়ে পদক্ষেপ নিলে আজ এই ভাবে খুন হতে হতো না তার মাকে। গোটা গ্রামজুড়ে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

কোচবিহার জেলা পুলিশ সুপার কে কান্নান বলেন, একটি খুনের ঘটনা ঘটেছে, তুফানগঞ্জ থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়েছে। ইতিমধ্যেই দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের পাঠানো হয়েছে। গোটা বিষয়ে তদন্ত শুরু করা হয়েছে।