কোচবিহারে বিজেপির ভাঙ্গন অব্যাহত, জেলা সভাপতি পার্থর হাত ধরে বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ ৪ যুব নেতার

মাথাভাঙ্গাঃ ফের বিজেপি ছেড়ে তৃনমূল কংগ্রেসে যোগদান করলেন যুব মোর্চার চার কর্মী। আজ শীতলখুচি বিধানসভা কেন্দ্রের মধ্যে থাকা মাথাভাঙ্গা ১ নম্বর ব্লকের নয়ারহাট গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার ওই চার বিজেপির যুব সংগঠন যুব মোর্চার কর্মী তৃনমূল কংগ্রেসে যোগদান করেন। তাঁদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন শীতলখুচির তৃনমূল কংগ্রেস প্রার্থী পার্থ প্রতিম রায়।

এছাড়াও সেখানে উপস্থিত ছিলেন কোচবিহার জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক আবু তালেব আজাদ, রাহুল রায়, মাথাভাঙ্গা ১ নং ব্লক সভাপতি মহেন্দ্র নাথ বর্মন সহ বেশ কয়েকজন তৃনমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব।

এদিন তৃনমূলে যোগ দেওয়ার পর যুব মোর্চার ওই চার কর্মী প্রশান্ত বর্মন, শিবেন বর্মন, ভাস্কর বর্মন, উজ্জল দেরা জানান, দলীয় নেতৃত্বের বিভিন্ন কার্যকলাপে বীতশ্রদ্ধ হয়েই এদিন তৃনমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন তারা। তৃনমূল কংগ্রেস প্রার্থী পার্থ প্রতিম রায় বলেন, “ আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে দলকে জেতাতে সক্রিয় ভূমিকা নেবে বিজেপি থেকে তৃনমূলে যোগ দেওয়া ওই চার ক্রমেয়ে।

আগামীদিনে আরও অনেকেই তৃণমূলে আসতে চাইছেন, সময় মত সব জানিয়ে দেওয়া হবে।” অন্যদিকে বিজেপি অবশ্য ওই চার কর্মীর তৃণমূলে যোগদানকে গুরুত্ব দিয়ে দেখতে নারাজ। তাঁদের দাবি, এতে সংগঠনে কন প্রভাব পড়বে না।

বিজেপির তৃতীয় ও চতুর্থ দফার প্রার্থী ঘোষণার পর রাজ্যের বিভিন্ন এলাকায় প্রার্থী অসন্তুষ্ট বিজেপি কর্মীদের বিক্ষোভ দেখাতে দেখা গিয়েছে। তার আঁচ এসে পড়েছে কোচবিহারের একাধিক বিধানসভা কেন্দ্রে। সিতাই বিধানসভা কেন্দ্রে বিজেপি কর্মীরা প্রকাশ্যে ঘোষিত প্রার্থী দীপক কুমার রায়ের বদলে সংগঠন থেকে উঠে আসা কাউকে প্রার্থী করার দাবি জানিয়েছে।

একই ভাবে শীতলখুচি বিধানসভা কেন্দ্রে প্রার্থী ঘোষণার পরেই দল ছেড়েছেন বিজেপির বুদ্ধিজীবী মোর্চার নেত্রী বিশিষ্ট লেখিকা শশীবালা অধিকারী। তারপরে ফের এদিন ওই কেন্দ্রে দলবদলের ঘটনা ঘটল।