দিনহাটায় শান্তি ফিরিয়ে আনতে মিছিল সংযুক্ত মোর্চার বাম প্রার্থী আব্দুর রউফের

দিনহাটা, ২৬ মার্চঃ দিনহাটা বিজেপির শহর মন্ডল সভাপতি অমিত সরকারের অস্বাভাবিক মৃত্যুকে কেন্দ্র করে দিনহাটার বুকে যে রাজনৈতিক ভাবে অশান্তির পরিবেশ সৃষ্টি হয় সেই অশান্তিকে কাটিয়ে তুলতে দিনহাটা বাসীর শান্তিকে ফিরিয়ে আনতে মিছিল করল বাম-কংগ্রেস ও আইএস সংযুক্ত মোর্চা।

এদিন এই মিছিলে উপস্থিত ছিলেন দিনহাটা বিধানসভা কেন্দ্রের সংযুক্ত মোর্চার বাম প্রার্থী আব্দুর রউফ। এদিন মিছিলের পর মৃত অমিত সরকারের পরিবারের সাথে দেখা করেন তারা।

উল্লেখ্য, গত ২৪ মার্চ সকালে দিনহাটা শহরের পশু হাসপাতালের বারান্দায় বিজেপির শহর মণ্ডলের সভাপতি অমিত সরকারের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়। ওই ঘটনায় তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ তুলে ব্যাপক ভাঙচুর চালায় বিজেপি কর্মীরা।

তৃণমূল কংগ্রেসের ৭টি দলীয় কার্যালয় ভাঙচুর করা হয়। বিভিন্ন জায়গায় পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখানো হয়। ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। পরিস্থিতি সামাল দিতে শেষ পর্যন্ত লাঠি চার্চের পাশাপাশি কাঁদানে গ্যাস ছুঁড়তে বাধ্য হয় পুলিশ।

গতকাল বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাস বিজয় বর্গী, দীনেশ ত্রিবেদী কোচবিহারে ছুটে আসেন। তাঁরা দিনহাটায় গিয়ে মৃত নেতার পরিবারের সাথে কথা বলেন। ওই ঘটনা নিয়ে সিবিআই তদন্তের দাবি জানানো হয়।

এদিকে পুলিশ ইতিমধ্যেই ওই ঘটনা নিয়ে ময়না তদন্তের রিপোর্ট হাতে পেয়ে গিয়েছে। রিপোর্টে ওই নেতার মৃত্যুর কারণ হিসেবে আত্মহত্যার কথাই উল্লেখ করা হয়েছে। এছাড়াও রাতের বেশ কিছু বাড়ি ব্যাঙ্ক ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের থেকে পাওয়া সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ থেকে পাওয়া গিয়েছে, রাতে শেষ বারের মত অমিত সরকারকে একাই বাড়ি থেকে পশু হাসপাতালের দিকে হেটে যেতে দেখা গিয়েছে বলে তদন্তকারী অফিসাররা জানতে পেরেছেন।

এছাড়াও মৃতের কাছ থেকে যে সুইসাইট নোট পাওয়া গিয়েছে, সেখানে তিন জনের নাম উল্লেখ রয়েছে। ওই তিন জনই বিজেপির বিভিন্ন কমিটিতে দায়িত্বে রয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। যদিও বিজেপি ওই সুইসাইট নোটের হাতের লেখার সাথে অমিত সরকারের হাতের লেখার মিল নেই বলে দাবি করেছেন।

অন্যদিকে তৃণমূল কংগ্রেসর দিনহাটার বিধায়ক উদয়ন গুহ বলেন, “যাদের নাম সুইসাইট নোটে উল্লেখ রয়েছে, আর অমিত সরকারের ছেলে যে ছেলেটির নাম জানিয়েছেন। পুলিশ তাঁদের গ্রেপ্তার করে কেন জিজ্ঞাসাবাদ করছে না। কেন পোস্টমর্টেম রিপোর্ট প্রকাশ্যে নিয়ে আসছে না।”