কৃষকের মৃতদেহ উদ্ধারকে কেন্দ্র করে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য

মালদা : নিজের পটলের জমি থেকে উদ্ধার এক কৃষকের মৃত দেহ উদ্ধার ঘিরে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে মালদহের চাঁচলে। বৃহস্পতিবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে মালদহের চাঁচল থানার সদরপুর গ্রামে। তবে ওই কৃষক খুন না আত্মহত্যা করেছে তা নিয়ে দ্বন্দ্বে রয়েছে পুলিশ। গোটা ঘটনার তদন্তে নেমেছে চাঁচল থানার পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মৃত ওই কৃষকের নাম গৌরাঙ্গ মন্ডল (২৩) বাড়ি চাঁচল ২ নম্বর ব্লকের ভাকরি গ্রাম পঞ্চায়েতের সদরপুর গ্রামে। পুলিশ সূত্রে আরও জানা গিয়েছে যে মৃতদেহের শরীরে তেমন কোনো আঘাতের চিহ্ন নেই। মাথার পিছনে একটি আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

মৃতদেহের পাশ থেকে বেশ কয়েকটি কীটনাশক পাওয়া গিয়েছে। তবে পুলিশ প্রাথমিকভাবে অনুমান করছেন যে এটি একটি আত্মহত্যা। তবে সমস্ত বিষয় জানা যাবে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট এর পরে।

মৃত ওই কৃষকের পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, বুধবার সন্ধ্যার পর থেকেই গৌরাঙ্গ বাড়ি থেকে নিখোঁজ ছিল। সারারাত্রি সে বাড়ি ফেরেনি। পরিবারের লোকেরা অনেক খোঁজাখুঁজি করে তার যখন কোনো হদিস পাননি। পরিবারের সদস্যরা ভেবেছিল হয়তো কোন বন্ধুবান্ধবের সাথে কোথাও গিয়েছ। মোবাইল ফোনে ফোন করে কোন উত্তর পাননি তার।

এদিন সকালে ওই কৃষকের বাবা পটলের জমিতে যান তখন দেখতে পায় পটলের জমিতে মৃত অবস্থায় পড়ে রয়েছে গৌরাঙ্গ। খবর দেওয়া হয় বাড়িতে বাড়ির সমস্ত সদস্যরা ছুটে আছে ওই জমিতে মৃত গৌরাঙ্গ কে দেখে কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে গোটা পরিবারের লোক জনেরা।

এরপরে খবর দেওয়া হয় চাঁচল থানায়। চাঁচল থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠান।তবে এটি খুন না আত্মহত্যা তা নিয়ে দ্বন্দ্ব রয়েছে পুলিশ গোটা ঘটনা তদন্তে নেমেছে চাঁচল থানার পুলিশ।