বিধানসভা নির্বাচনে দেওয়াল লিখন তৃণমূলের, তীব্র কটাক্ষ বিজেপির

চাঁচলঃ নির্বাচনী ঘন্টা না দিলেও এখন থেকেই নির্বাচনী ময়দানে ঝাঁপিয়ে পড়েছে সমস্ত রাজনৈতিক দল। একুশের বিধানসভা নির্বাচনে বাংলা দখল করতে মরিয়া যাব গেরুয়া শিবির তেমনি তৃতীয়বারের জন্য সরকার গঠনের জোর লড়াই শুরু করেছে শাসকদল তৃণমূল।

তাই একুশের নির্বাচনের ঘন্টা বাজার আগেই দেওয়াল লিখন করে এগিয়ে থাকতে চাইছে শাসক দল তৃণমূল। এদিন মালদহের চাঁচল বিধানসভা এলাকায় একাধিক দেওয়ালে দেওয়াল লিখন করলেন তৃণমূলের শ্রমিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা। আরে দেওয়াল লিখন নেই তীব্র কটাক্ষ করেছে বিজেপি। বিজেপির দাবি, বহু আগে থেকেই বাংলা দখলের জন্য তারা নির্বাচনী ময়দানে নেমে পড়েছেন।

বহু আগেই তারা চাঁচল বিধানসভা বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় তারা ইতিমধ্যেই দেওয়াল লিখন করে ফেলেছেন। তাদেরই অনুসরণ করে শাসকদল তৃণমূল দেওয়াল লিখন করতে নেমেছে। এবার বাংলা পাল্টাবে এমনটাই দাবি করেন বিজেপির সাধারণ সম্পাদক দীপঙ্কর রাম।

অন্যদিকে শাসকদল তৃণমূল এর দাবি তৃণমূল সব দিক দিয়ে এগিয়ে থাকে তাই ২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচনে তৃতীয়বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী হতে চলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আরে বিধানসভা নির্বাচনে এখন থেকেই নির্বাচনী ময়দানে ঝাঁপিয়ে পড়েছেন। তাই এদিন দেওয়াল লিখনের মধ্য দিয়ে নির্বাচনের প্রচার শুরু করলেন শাসক দল তৃণমূল। কিন্তু চাঁচল বিধানসভা কংগ্রেসের উবর জমিতে যেমন ঘাসফুল ফোটাতে মরিয়া শাসকদল তৃণমূল তেমনি গেরুয়া ঝড় তুলতে নির্বাচনী ময়দানে ঝাঁপিয়ে পড়েছে পদ্মফুল শিবিরও।

এ বিষয়ে তৃণমূলের চাঁচল ১ নম্বর ব্লকের সহ সভাপতি তথা শ্রমিক সংগঠনের সভাপতি দেবব্রত সিংহ জানান, তৃতীয়বারের জন্য বাংলায় মুখ্যমন্ত্রী হতে চলেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সেই লক্ষ্যে এ দিন থেকে আমরা দেওয়াল লিখনের মধ্য দিয়ে প্রচার শুরু করলাম।তৃণমূল সব দিক দিয়ে এগিয়ে থাকে তাই আমরা দেওয়াল লিখন করে এই নির্বাচনে এই বিধানসভায় এগিয়ে থাকলাম। পাশাপাশি বিজেপি সম্প্রদায়িক দল সাধারণ মানুষকে ভাওতা দায়ী। বেকারদের জন্য চাকরি করে দেবে ১৫ লক্ষ টাকা করে অ্যাকাউন্টে ভরে দেবে। কৃষকদের জন্য কৃষক বিল এনে ব্যর্থ ব্যথিত করেছে যেখানে কৃষকরা হাড় হিম করা এই ঠান্ডায় রাস্তায় নেমে এই বিলের প্রতিবাদ করছে। এই সমস্ত কিছু ঠিক ভেবেই বাংলার মানুষ এবারও মা মাটি সরকার তৃণমূলকে তৃতীয়বারের জন্য দুহাত তুলে আশীর্বাদ করবেন।

অন্যদিকে তৃণমূলের এই দেওয়াল লিখন নিয়ে তীব্র কটাক্ষ করেন বিজেপির জেলার সম্পাদক দীপঙ্কর রাম। তিনি বলেন, ভারতীয় জনতা পার্টির বহুদিন থেকেই দেওয়াল লিখন শুরু করেছে ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় দেওয়াল লিখন সম্পূর্ণ হয়ে গেছে। শাসক দল তৃণমূল বিজেপি কে অনুসরণ করে চলছে। রাজনৈতিক ময়দানে আমরা আগে থেকেই নেমে পড়েছি শাসকদল নেমে পড়েছেন। এই নির্বাচনী ময়দানে এক ইঞ্চিও জায়গা আমরা শাসক দলকে দিব না। মালদা জেলায় বারোটা বিধানসভার মধ্যে আমরা আশাবাদী বারোটি বিধানসভা ভারতীয় জনতা দখলে থাকবে।