Ad
মালদা

ছাদ থেকে ফেলে গৃহবধূকে মারার অভিযোগ উঠল শ্বশুরবাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে

এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর রয়েছে

ইউবিজি নিউজ ব্যুরো : ছাদ থেকে ফেলে এক গৃহবধূকে মারার অভিযোগ উঠল শ্বশুরবাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে মালদহের রতুয়া ১নম্বর ব্লকের সামসি গ্রাম পঞ্চায়েতের সোহড়াতলা গ্রামে।

গৃহবধূর নাম নাসিমা খাতুন। প্রায় ৭মাস আগে সোহড়াতলার যুবক সাহেব আলির সাথে তার পরিচয় হয়। তারপরই বিয়ে। মাস খানেক আগে সাহেব ও নাসিমা সামসি এলাকার এক ভাড়া বাড়িতে থাকা শুরু করে। এরপর নাসিমাকে বুঝিয়ে সুঝিয়ে বাপের বাড়িতে রেখে সে নিজের বাড়িতে থাকতে শুরু করে।

Ad

সাহেবের বাড়ির লোক বিয়ের ব্যাপারে কিছুই জানত না। সাহেবের বিয়ের জন্য সম্বন্ধ খোঁজা শুরু করেন তারা। বিষয়টি জানতে পেরে নাসিমা সাহেবের বাড়ির সামনে ধর্নায় বসে। প্রশাসন ও স্থানীয়দের হস্তক্ষেপে নাসিমাকে ঘরে তুলতে বাধ্য হয় তার শ্বশুরবাড়ির লোকজন।

অভিযোগ শ্বশুরবাড়ির লোকজনেরা চক্রান্ত করে প্রানে মেরে ফেলার জন্য নাসিমাকে ছাদ থেকে ফেলে দেয়। ঘটনাক্রমে বেঁচে গেলেও পা এবং কোমরে জোর আঘাত লাগে। নাসিমার মা বলেন, ঐ ঘটনার পর থেকে তাদের মেয়ের শ্বশুরবাড়ির লোকজনদের আর কোনো খবর নেই। আজ সাহেব সহ মোট ৬জনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ জানানো হয় রতুয়া থানায়।

নাসিফর শ্বশুরবাড়ির লোকজনের দাবি নাসিফা এবং সাহেবের কোনদিন বিয়েই হয়নি। আসিফ সম্পুর্ন মিথ্যা অভিযোগ করছে। পুলিশ ঘটনার তদন্তে নেমেছে।

আরও পড়ুন