রাজ্যে ষষ্ঠ দফার ভোটের মুখে ফের চার পুলিশ আধিকারিককে সরিয়ে দিল নির্বাচন কমিশন

UBG NEWS: রাজ্যে ষষ্ঠ দফার ভোটের মুখে ফের চার পুলিশ আধিকারিককে সরিয়ে দিল নির্বাচন কমিশন।

মূলত বিজেপির দাবি মেনে সোমবার আসানসোল-দুর্গাপুরের পুলিশ কমিশনার সুকেশ জৈন, পূর্ব বর্ধমানের পুলিশ সুপার ভাস্কর মুখোপাধ্যায়, বীরভূমের পুলিশ সুপার মিরাজ খালিদ ও বোলপুরের মহকুমা পুলিশ আধিকারিক অভিষেক রায়কে অপসারিত করেছে কমিশন। অপসারিত পুলিশ আধিকারিকদের নির্বাচনী কাজের সঙ্গে জড়িত কোনও পদে রাখা যাবে না বলে রাজ্য সরকারকে জানিয়ে দিয়েছেন কমিশনের সচিব অরবিন্দ আনন্দ।

আগামী ২৬ এপ্রিল সপ্তম দফায় পশ্চিম বর্ধমানের ৯ বিধানসভা আসনে ভোট রয়েছে। লোকসভা ভোটে বিজেপি ওই নয় আসনে এগিয়ে থাকলেও জিতেন্দ্র তিওয়ারি, দীপ্তাংশু চৌধুরীর মতো ‘দলবদলুদের’ প্রার্থী করায় গেরুয়া শিবিরের কর্মীদের নিচুতলায় ক্ষোভ দানা বেঁধেছে। ফলে অনেকটা ব্যাকফুটে রয়েছে পদ্ম শিবির।

গত কয়েকদিন ধরেই আসানসোল-দূর্গাপুরের পুলিশ কমিশনার সুকেশ জৈনকে বদলির দাবি জানাচ্ছিলেন বিজেপি নেতা-কর্মীরা। সেই দাবি মেনে এদিন দক্ষ আধিকারিককে সরিয়ে ২০০৪ সালের আইপিএস আধিকারিক গেরুয়া শিবিরের ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত মিতেশ জৈনকে নয়া কমিশনার করে পাঠানো হয়েছে।

গত ১৭ এপ্রিল পূর্ব বর্ধমানের ৮ বিধানসভা আসনের ভোট দক্ষ হাতে সামাল দেওয়ার পরেও সরে যেতে হল বিজেপির ঘোরতর অপসন্দের পুলিশ সুপার ভাস্কর মুখোপাধ্যায়কে। তাঁর জায়গায় পাঠানো হয়েছে ২০১১ সালের আইপিএস অজিত কুমার সিংকে। আগামী ২২ এপ্রিল পূর্ব বর্ধমানের আরও ৮ আসনে ভোট রয়েছে।

নন্দীগ্রামে অবাধ ও শান্তিপূর্ণ ভোট করাতে ‘ডাহা ফেল’ করা সত্বেও বিজেপি শিবিরের বিশ্বস্ত হিসেবে পরিচিত নগেন্দ্রনাথ ত্রিপাঠীকে বীরভূমের পুলিশ সুপার হিসেবে পাঠানো হয়েছে। আগামী ২৯ এপ্রিল রাজ্যে অষ্টম দফায় বীরভূমের ১১ আসনে ভোট রয়েছে। কমিশন সূত্রে জানা গিয়েছে, রাজনৈতিক পক্ষপাতিত্বের অভিযোগে সরানো হয়েছে বীরভূমের পুলিশ সুপার মিরাজ খালিদকে। পাশাপাশি বোলপুরের মহকুমা পুলিশ আধিকারিক অভিষেক রায়কেও সরিয়ে দিয়েছে কমিশন। তাঁর জায়গায় পাঠানো হয়েছে ২০১৮ সালের আইপিএস নাগারাজ দেবরাকোন্ডাকে।