ধানের জমি থেকে ছাত্রীর পঁচাগোলা দেহ উদ্ধারকে কেন্দ্র করে তীব্র চাঞ্চল্য এলাকায়

UBG NEWS, ডেস্ক :ধানের জমি থেকে এক দশম শ্রেণীর ছাত্রীর পঁচাগোলা দেহ উদ্ধারকে কেন্দ্র করে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে মালদা জেলার হরিশ্চন্দ্রপুরে। বুধবার ঘটনাটি ঘটেছে মালদা জেলার হরিশ্চন্দ্রপুরের ২ ব্লকের আলঙ্গী গ্রামের মাঠে।স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, এদিন মাঠে কাজ করতে যাওয়া কৃষকরা প্রথমে ওই ছাত্রীর পচা-গলা মৃতদেহ দেখতে পায়।

পরে হরিশ্চন্দ্রপুর থানা ভালুকা ফাঁড়িতে খবর দেওয়া হলে ভালুকা ফাঁড়ির পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠান। গোটা ঘটনার তদন্তে নেমেছে মালদা জেলার হরিশ্চন্দ্রপুর থানার পুলিশ।পুলিশ সূত্রে জানা যায়, মৃত ওই ছাত্রীর নাম মেহেরুন খাতুন (১৮)।

বাড়ি মালদা জেলা হরিশ্চন্দ্রপুর ১ নম্বর ব্লকের রঙাইপুর গ্রামে। সে চিতলীয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্রী ছিল।মৃত ছাত্রীর পরিবার সদস্যদের কাছ থেকে জানা যায়, গত দুদিন ধরে ওই ছাত্রী হঠাৎই বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়ে যায়। বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করার পরও তার কোন হদিস পাওয়া যায়নি। নিখোঁজের দুদিন পরে হরিশ্চন্দ্রপুর থানায় একটি নিখোঁজ অভিযোগ দায়ের করেন পরিবারের সদস্যরা।

এদিন সকালে মালদা জেলার হরিশ্চন্দ্রপুর ২ নম্বর ব্লকের আলঙ্গি গ্রামের মাঠে একটি ধানের জমিতে স্থানীয় কৃষকেরা পচা গলা মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখেন। এরপরই খবর দেওয়া হয় ভালুকা ফাঁড়িতে ভালুকা ফাঁড়ির পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে মৃতদেহ উদ্ধার করে নিয়ে যায়।তবে এই ঘটনায় মৃত ওই ছাত্রীর পরিবারের সদস্যরা অভিযোগ করে বলেন, নয় দিন ধরে নাবালিকাটি নিখোঁজ ছিল।

আজ সকালে এক জমি থেকে পোঁতা অবস্থায় তার পঁচাগোলা দেহ উদ্ধার হয়। অনুমান করা হচ্ছে প্রেম ঘটিত কারণে মায়েটিকে খুন করে মাটিতে পুঁতে দিয়েছে বলে অভিযোগ করছে পরিবারের সদস্যরা। এদিকে গোটা ঘটনা তদন্তে নেমেছে হরিশ্চন্দ্রপুর থানা পুলিশ।