সাতসকালে বিজেপি কর্মীর বাড়ির জানালা থেকে উদ্ধার তাজা বোমা, চাঞ্চল্য

ইউবিজি নিউজ, মালদাঃ একুশের বিধানসভা নির্বাচন যতই এগিয়ে আসছে ততই গরম হচ্ছে রাজ্যেুর রাজনৈতিক বাজার। সাতসকালে বিজেপি কর্মীর বাড়ির জানালায় তাজা বোমা উদ্ধারকে ঘিরে চাঞ্চল্যপ ছড়ালো। মঙ্গলবার সকালে মালদহের চাঁচল থানা পাড়ার ঘটনাকে ঘিরে রীতিমতো চাঁচলের রাজনৈতিক পারদ আরও চরমে উঠে গেল।

বিজেপি সূত্রে খবর, থানা পাড়ার শিব শংকর দাস একজন সক্রিয় বিজেপি কর্মী। তার বাড়ি থেকে দুটি তাজা বোমা উদ্ধারে শাসকদলের দিকে অভিযোগে আঙ্গুল তুলেছে বিজেপি।

শিবশঙ্করের স্ত্রী প্রিয়া দাসের অভিযোগ করে বলেন, পাড়ায় কারোও সাথে পুরোনো বিবাদ নেই। তবে এটা শাসকদলের চক্রান্ত হতে পারে বলে তিনি মনে করছেন। গোটা ঘটনায় উত্তপ্ত চাঁচলের রাজনৈতিক মহল।

ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ পৌঁছে বোমা উদ্ধার করেছে এবং কে বোমা রাখলো পুলিশ তা তদন্ত শুরু করেছে। এদিকে বোমা উদ্ধারকে ঘিরে চাঁচলে শূরু হয়েছে তৃণমূল-বিজেপি রাজনৈতিক তর্জা।

মালদা জেলা বিজেপি কমিটির সম্পাদক দীপঙ্কর রাম বলেন, চাঁচলে ভাতৃত্বের সম্পর্ক বজায় ছিল। ইতিমধ্যে দূবছর ধরে এলাকায় বিজেপির প্রভাব পড়ায় যেন তা ক্ষুন্ন হচ্ছে। মাস খানেক আগে বিজেপির ধরনা মঞ্চ ভেঙেছিল ওরা। মূলত নানান কর্মসূচিতে বাধার অভিযোগ উঠছে তাদের বিরুদ্ধে। নাম না করেই শাসক দলের বিরুদ্ধে বেসুরো হয়ে বলেন দীপঙ্কর রাম।

তাছাড়া তিনি আরোও বলেন, চাঁচল সদরের বাজার পাড়া ও থানা পাড়া একটা গেরুয়া গড়। বাসিন্দাদের ভয় দেখানোর জন্য ই তারা এসব করছে।

পাল্টা কটাক্ষ করতে ছাড়েননি মালদা জেলা পরিষদের সদস্যগ তথা জেলা তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক সামিউল ইসলাম। তিনি বলেন, চাঁচলে ঘাসফুলে বইছে। চাঁচল বিধানসভায় ঘাসফুলের জয় নিশ্চিত ভেবে বিজেপি শিরোনামে আসার জন্যন নিজেরাই নাটক করে এসব করছে। তৃণমুলও থমকে থাকবে না। গোটা ঘটনাট দলের উর্ধবতন কর্তৃপক্ষকে জানাব। তৃনমূলের ভীত শক্ত রয়েছে চাঁচল বিধানসভায়।