ত্রাণের ত্রিপল চুরির অভিযোগে নাম জড়াল শুভেন্দু অধিকারী ও তাঁর ভাই সৌমেন্দুর

কাঁথি, ৬ জুনঃ লক্ষাধিক টাকার ত্রাণের ত্রিপল চুরির অভিযোগে নাম জড়াল নন্দীগ্রামের বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারী ও তাঁর ভাই সৌমেন্দু অধিকারীর। এনিয়ে এফআইআর হল কাঁথি থানায়।

কাঁথি পুরসভার অভিযোগের ভিত্তিতে এই এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে শুভেন্দু বা সৌমেন্দু কারোরই তরফে কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

ঘটনার সূত্রপাত হয় শনিবার। কাঁথি পুরসভার পুরনো বিল্ডিং ডরমেটরি মাঠ সংলগ্ন এলাকায় পুরসভার গুদামঘর রয়েছে। এদিন দুপুর ১টা নাগাদ সেখান থেকে পুরসভায় কাজ করতে যাচ্ছিলেন সেখানকারই এক পুরকর্মী। সেই সময় তাঁর নজরে আসে ওই গুদাম ঘরের সামনে সেন্ট্রাল ফোর্সের জওয়ানদের উপস্থিতিতে ত্রিপল বার করিয়ে ম্যাটাডোরে তোলা হচ্ছে। তড়িঘড়ি ওই কর্মী বিষয়টি গিয়ে কাঁথি পুরসভার প্রশাসক সিদ্ধার্থ মাইতিকে জানান। খবর পেয়েই সিদ্ধার্থবাবু প্রশাসক মণ্ডলীর দুই সদস্য হাবিবুর রহমান, রত্নদীপ মান্না ও যুব তৃণমূলের এক নেতা সুরজিৎ নায়ককে সঙ্গে নিয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান। জানা গিয়েছে, ঘটনাস্থলে পৌঁছে পুরসভার প্রশাসকেরা গুদামের দায়িত্বে থাকা পুরকর্মী হিমাংশু মান্নাকে দীর্ঘক্ষণ জিজ্ঞাসাবাদ করেন।

ওই গুদাম কর্মীর অভিযোগ, ‘শুভেন্দু অধিকারীর কিছু ব্যক্তিগত ত্রিপল পুরসভার গুদামে জমা ছিল। সেই সমস্ত ত্রিপল নেওয়ার জন্য তিনি লোক পাঠিয়েছিলেন।’ কিন্তু পুর প্রশাসকদের পাল্টা অভিযোগ, ওই ত্রিপলগুলিতে সরকারি লোগো লাগানো ছিল।

পুর প্রশাসক সিদ্ধার্থবাবুর আরও অভিযোগ, তাঁকে না জানিয়ে প্রভাব খাটিয়ে শুভেন্দু অধিকারী এই কাণ্ড ঘটিয়েছেন।পুর প্রশাসনের অনুমতি ছাড়া এ ভাবে ত্রাণের ত্রিপল বের করে নিয়ে যাওয়ার ঘটনায় ক্ষুব্ধ হন পুরসভার প্রশাসক মণ্ডলীর সদস্যরা। এর পরই পুর প্রশাসক মণ্ডলীর সদস্য রত্নদীপ মান্না কাঁথি থানায় গিয়ে শুভেন্দু ও সৌমেন্দুর বিরুদ্ধে ত্রাণের ত্রিপল চুরির অভিযোগে এফআইআর দায়ের করেন।

ওই ঘটনায় ইতিমধ্যেই একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ত্রিপল চুরির অভিযোগে কাঁথি থানায় অভিযোগ করেন পুর প্রশাসক মণ্ডলীর সদস্য রত্নদীপ মান্না।