রাজ্য পুলিশের গোয়েন্দা প্রধান রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে এফআইআর

কলকাতা: বড় বিপাকে আইপিএস অফিসার রাজীব কুমার।

মহানগর কলকাতার প্রাক্তন নগরপাল তথা পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য পুলিশের গোয়েন্দা প্রধান রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে দায়ের করা হল এফআইআর। শনিবার কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআইয়ের পক্ষ থেকে এই কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

গত সপ্তাহের শুক্রবার থেকে বড় লড়াই শুরু হয়েছে আইপিএস অফিসার রাজীব কুমারের সঙ্গে সিবিআইয়ের। যার শুরু হয়েছিল বছর দুই আগে। সারদা মামলার তদন্তের স্বার্থে ডেকে পাঠানো হয় রাজ্য সরকার কর্তৃক গঠিত সিটের প্রধান রাজীবকে। বারবার সিবিআই তলব এড়িয়ে গিয়েছিলেন রাজীব।

এরপরে পরিস্থিতি চরমে ওঠে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসের তিন তারিখে। ওই দিন রাজীব কুমারের খোঁজে তাঁর বাড়িতে যায় সিবিআইয়ের এক প্রতিনিধিদল। যার প্রতিবাদে ধরণার বসেছিলেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এরপরে অনেক জল গড়িয়েছে। শিলং-এর দফতরে গিয়ে হাজিরা দিয়েছেন রাজীব।

তবে আদালতের রক্ষাকবচ থাকায় তাঁকে গ্রেফতার করতে পারেনি সিবিআই। গত সপ্তাহে সেই রক্ষাকবচ সরিয়ে নিয়েছে আদালত। তারপর থেকেই শুরু হয়েছে নাটকের নতুন অঙ্ক।

আদালতের রক্ষাকবচ উঠতেই ফের তলব করা হয় আইপিএস কর্তা রাজীবকে। ফের জেরা এড়িয়ে যান রাজীব। আইনজীবী মারফত জানিয়ে দেন যে তিনি ছুটিতে আছেন। তবে ছুটি নিয়ে কোথায় গিয়েছেন তা বলেননি। রাজ্য প্রশাসনের কর্তাদের থেকেও এই প্রশ্নের জবাব পায়নি সিবিআই।

এরই মাঝে একাধিক আদালতে আগাম জামিন চেয়ে মামলা করেছেন রাজীব কুমারের আইনজীবীরা। যদিও আদালতের পক্ষ থেকে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে যে আদালতের পরোয়ানা ছাড়াও রাজীব কুমারকে গ্রেফতার করতে পারবে সিবিআই। এরপরে রাজীবের খোঁজে হোটেল থেকে হাসপাতাল, নানা জায়গায় অভিযান চালিয়েছে সিবিআই আধিকারিকেরা। কিন্তু কোনও সুরাহা হয়নি।

গত এক সপ্তাহ ধরে সিবিআই এবং আইপিএস রাজীব কুমারের মধ্যে চলছে চোর-পুলিশ খেলা। এই অবস্থায় শনিবার রাজীবের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেছে সিবিআই। কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে যে রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে সারদা মামলায় তথ্য লোপাটের অভিযোগ রয়েছে। তদন্তে তিনি কোনও সহযোগিতা করছেন না। তাঁর কোনও খোজও পাওয়া যাচ্ছে না। এই অবস্থায় নিখোঁজ দুদে আইপিএসের বিরুদ্ধে এফআইআর করা হয়েছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার পক্ষ থেকে।