করোনায় পিছবে না, নির্ধারিত সূচি অনুযায়ীই হবে আইপিএল : সৌরভ গাঙ্গুলি

ইউবিজি নিউজ : ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ। যে ভাবে করোনার প্রকোপ বাড়ছে, তাতে ১০ এপ্রিল ওয়াংখেড়েতেও ম্যাচ হবে কিনা, তা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছিল। গত কয়েক দিনে করোনার হানায় উদ্বেগ তৈরি হচ্ছিল আইপিএল ঘিরে। প্রশ্ন উঠছিল, নির্ধারিত সূচি মেনে ৯ তারিখেই কি চেন্নাইয়ে শুরু হবে আইপিএল?

যাবতীয় জল্পনার অবসান ঘটিয়ে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় রবিবার রাতে জানিয়ে দিলেন, নির্ধারিত সূচি অনুযায়ীই আইপিএল হচ্ছে।

বাড়তে থাকা করোনা নিয়ে এ দিনই আবার মহারাষ্ট্র সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, আগামী শুক্রবার রাত আটটা থেকে সোমবার ভোর সাতটা পর্যন্ত লকডাউন চলবে। যে কারণে পরের শনিবারের চেন্নাই সুপার কিংস বনাম দিল্লি ক্যাপিটালসের ম্যাচ হওয়া নিয়ে প্রশ্ন উঠে গিয়েছিল। কিন্তু সংবাদ সংস্থা এএনআইয়ের প্রশ্নের জবাবে সৌরভ পরিষ্কার বলেছেন, ‘‘নির্ধারিত সূচি মেনেই আইপিএল হচ্ছে।’’

এরই মধ্যে আবার ক্রিকেটারদের জন্য প্রতিষেধকের ব্যবস্থা করা যায় কি না, তা নিয়ে ভাবনা শুরু করেছে বোর্ড। এ দিন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের ভাইস প্রেসিডেন্ট রাজীব শুক্ল সংবাদ সংস্থাকে জানিয়েছেন, প্রতিষেধকের জন্য তাঁরা কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের সঙ্গে যোগাযোগ করবেন। শুক্ল বলেছেন, ‘‘করোনার এই প্রকোপ ঠেকানোর একমাত্র রাস্তা হল প্রতিষেধক নেওয়া। ক্রিকেট বোর্ডও একই কথা ভাবছে। আমরা মনে করি, ক্রিকেটারদের প্রতিষেধক নিয়ে নেওয়াটা এখন খুবই জরুরি।’’ তবে এই ভাবে ক্রিকেটারদের প্রতিষেধক দেওয়ার ব্যবস্থা করা যায় কি না, তা নিয়েও প্রশ্ন থাকছে।

এখনও পর্যন্ত তিন জন ক্রিকেটারের শরীরে করোনাভাইরাস পাওয়া গিয়েছে। যে কারণে আর ঝুঁকি নিতে চাইছে না বোর্ড। শুক্ল এও বলেন, ‘‘কোভিড-১৯ অতিমারি কবে শেষ হবে, কেউ জানে না। কোনও সময়সীমা এর জন্য বেঁধে দেওয়া সম্ভব নয়। প্রতিষেধক নেওয়া থাকলে ক্রিকেটারেরা নিশ্চিন্ত মনে খেলতে পারবে। ব্যাপারটা এখন সে দিকেই যাচ্ছে। আমরা মনে করি, ক্রিকেটারদের জন্যও প্রতিষেধকের ব্যবস্থা করতে হবে।’’ এই নিয়ে কি বোর্ড কথা বলেছে স্বাস্থ্যমন্ত্রকের সঙ্গে? বোর্ডকর্তার জবাব, ‘‘আমরা ব্যাপারটা নিয়ে ভাবা শুরু করেছি। আমাদের বক্তব্য তাড়াতাড়ি স্বাস্থ্যমন্ত্রককে জানাব।’’

গত কয়েক দিনের মধ্যে আইপিএলের সঙ্গে যুক্ত ১৯ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। যাঁদের মধ্যে যেমন ক্রিকেটারেরা আছেন, তেমন আছেন ওয়াংখেড়ের মাঠকর্মীরাও। যার ফলে মুম্বইয়ে আইপিএল হবে কি না, এই নিয়ে প্রশ্ন উঠে গিয়েছিল। শুক্ল বলেছেন, ‘‘মুম্বই থেকে ম্যাচ সরানোর কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। ওখানে সব কিছুর ব্যবস্থা করা হয়ে গিয়েছে।’’ তবে বিকল্প কেন্দ্রও যে তৈরি রাখা হয়েছে, তা জানিয়েছেন তিনি। বলেছেন, ‘‘প্রথম বিকল্প স্টেডিয়াম হল লখনউ। তার পরে হায়দরাবাদ ও ইনদওর আছে। এ ছাড়া আরও কয়েকটা নাম আমাদের মাথায় আছে। দেখা যাক, পরিস্থিতি কী দাঁড়ায় শেষ পর্যন্ত।’’