শাসক দলের সব অভিযোগ খারিজ, তৃণমূলকে কড়া বার্তা নির্বাচন কমিশনের

ইউবিজি নিউজ ডেস্ক :শাসক তৃণমূলের অভিযোগ নসাৎ করে দিল নির্বাচন কমিশন৷ একই সঙ্গে পাল্টা চিঠি দিয়ে কার্যত নন্দীগ্রাম কাণ্ডের দায় রাজ্যের ঘাড়েই চাপাল কমিশন৷

কমিশন সূত্রের খবর, তিন পাতার চিঠিতে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, পুলিশে রদবদলের বিষয়টি আগে থেকে ঠিক ছিল৷ রাজ্যে যে পুলিশ পর্যবেক্ষকরা রয়েছেন, তাঁদের নির্দেশেই এই রদবদল হয়েছে৷ এর সঙ্গে কমিশনের কোনও সম্পর্ক নেই৷

প্রসঙ্গত, নন্দীগ্রামে মুখ্যমন্ত্রীর ওপর হামলার ঘটনায় দলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় থেকে শুরু করে জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক, মদন মিত্ররা সকলেই একযোগে কমিশনকে কাঠগোড়ায় দাঁড় করিয়েছেন৷ তাঁদের দাবি, ‘‘পরিকল্পিতভাবেই এই হামলা হয়েছে এবং এতে মদত রয়েছে স্বয়ং কমিশনের৷’’ নিজেদের দাবির স্বপক্ষে শাসকদলের দাবি, ‘‘কেন পুলিশে রদবদল করা হল ? মুখ্যমন্ত্রীর সফরে পর্যাপ্ত নিরাপত্তার ব্যবস্থা ছিল না কেন ?’’

সূত্রের খবর, তিনপাতার চিঠিতে ওই অভি়যোগেরও সদুত্তর দিয়েছে কমিশন৷ সূত্রের খবর তাতে স্পষ্ট লেখা হয়েছে,‘ভোটের নামে রাজ্য প্রশাসনের নিয়ন্ত্রণ নেয়নি কমিশন। রাজ্য প্রশাসনের দৈনন্দিন কাজ সামলাবে রাজ্য সরকারই’। নিজেদের মতের সপক্ষে সংবিধানের ৪২৩ ধারা টেনে এনে কমিশনের তরফে বলা হয়েছে, নির্বাচনের সময়ও রাজ্যের প্রাত্যহিক আইনশৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্ব থাকে রাজ্য প্রশাসনেরই হাতে। সেখানে কমিশনের কিছু করার নেই।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে,কমিশন ও বিজেপিকে এক বন্ধনীতে রেখে শাসকদলের তরফে আক্রমণের যে চেষ্টা করা হচ্ছিল শুধু তা নসাৎ করা নয়, ভবিষ্যতে যাতে ফের এই ধরণের অভিযোগ না তোলা হয় পরোক্ষে সেই বার্তাও দিয়েছে কমিশন৷

ওই মহলের মতে,‘রাজ্যের প্রাত্যহিক কাজ রাজ্যকেই সামলাতে হবে, কমিশনের কিছু করার নেই’বলে স্পষ্টভাবে রাজ্যকেই কড়া বার্তা দেওয়া হয়েছে৷ যদিও এবিষয়ে এখনও শাসকদল বা রাজ্য সরকারের তরফে পাল্টা কোনও মন্তব্য আসেনি৷ তবে কমিশনের তরফ থেকে পাঠানো চিঠির সত্যতা মেনে নিয়েছে শাসকদল৷