Ad
দেশ

জন্মদিনে মায়ের কাছে গিয়ে আশীর্বাদ নিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর রয়েছে

UBG NEWS, নিউজ ডেস্ক : ৬৯তম জন্মদিনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দেখা করলেন তাঁর মা হীরা বেনের সঙ্গে। চাইলেন আশীর্বাদ। গুজরাতের গান্ধিনগরের কাছে থাকেন হীরা বেন। সেখানেই মঙ্গলবার দুপুরে পৌঁছলেন প্রধানমন্ত্রী। দ্বিপ্রাহরিক খাওয়াদাওয়া সারেন সেখানেই। ৯৮ বছরের হীরাবেন তাঁর ছোট ছেলে পঙ্কজ মোদির সঙ্গে রাইসিন গ্রামে থাকেন। এদিন নবতিপর মায়ের সঙ্গে বসে দুপুরের খাওয়া সারতে দেখা গেল প্রধানমন্ত্রীকে।

খাওয়াদাওয়ার পরে প্রতিবেশীদের সঙ্গে দেখা করতে যান গিয়েছিলেন মোদি। ব্যস্ত সূচির মধ্যেও গুরুত্বপূর্ণ দিনে মায়ের সঙ্গে দেখা করেন প্রধানমন্ত্রী। দ্বিতীয় বার ক্ষমতায় আসার পরে তিনি মায়ের সঙ্গে দেখা করে গিয়েছিলেন। ছেলের শপথগ্রহণও টেলিভিশনের পর্দায় দেখেছিলেন হীরা বেন। রাষ্ট্রপতি ছেলের শপথগ্রহণ করানোর সময় তাঁকে হাততালি দিতেও দেখা গিয়েছিল।

Ad


সোমবার রাতে গুজরাতে পৌঁছন মোদি। সকালে গান্ধিন‌গর থেকে বিমানে পৌঁছন কেভাডিয়াতে । ‘স্ট্যাচু অফ ইউনিটি’ এবং ‘সর্দার সরোবর বাঁধ’ পরিদর্শনে যান।

সর্দার সরোবর বাঁধের জলস্তর এর পূর্ণ ক্ষমতায় পৌঁছেছে (১৩৮.৬৮ মিটার)। ২০১৭ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর এই বাঁধের উদ্বোধন করেছিলেন মোদিই। সেই উপলক্ষে বাঁধটি সুন্দর করে সাজানো হয়েছে রংবেরঙের বাল্ব দিয়ে। নর্মদা নদীতে সর্দার সরোবর বাঁধ দেখার পাশাপাশি সর্দার বল্লভভাই পটেলের বিরাট মূর্তি ‘স্ট্যাচু অফ ইউনিটি’ও পরিদর্শন করেন তিনি।

সর্দার সরোবর বাঁধ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী এদিন বলেন, ‘‘আমরা প্রথমবারের মতো সরদার সরোবর বাঁধটি পূর্ণ দেখেছি। এমন একটি সময় ছিল যখন ১২২ মিটারের লক্ষ্যে পৌঁছনো বড় ব্যাপার ছিল। তবে ৫ বছরের মধ্যে ১৩৮ মিটার পর্যন্ত সর্দার সরোবর ভরাট করা আশ্চর্যজনক এবং অবিস্মরণীয়।” মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রূপানির সঙ্গে ‘নমামি নর্মদে মহোৎসব’-এর সূচনা করেন মোদি। এরপর সেখানে তিনি প্রার্থনা করেন নর্মদা নদীর জলকে স্বাগত জানিয়ে।


এদিন গুজরাতে ভাষণ দেওয়ার সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‘চারটি রাজ্য নর্মদা প্রকল্পের সুফল পয়েছে।” তিনি আরও বলেন, ‘‘আজকের দিনে মা নর্মদার দর্শনের সুযোগ পাওয়া যায়। পুজো-অর্চনার অবসর মেলে। আমার জন্য এ বড়ই সৌভাগ্য।”

দেশজুড়ে নানা ভাবে পালিত হচ্ছে মোদির ৬৯তম জন্মদিন। গেরুয়া শিবিরের পক্ষ থেকে এই সপ্তাহটি পালিত হচ্ছে ‘সেবা সপ্তাহ’ হিসেবে। এতে অংশ নিয়েছেন দলের সভাপতি অমিত শাহ ও অন্য গুরুত্বপূর্ণ নেতারা। চালানো হবে সাফাই অভিযান। এছাড়া রক্তদানও করা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীকে টুইটারের মাধ্যমে অনেকেই শুভেচ্ছা জান‌িয়েছেন।

আরও পড়ুন