বাংলায় সপ্তম বেতন কমিশনের আশ্বাস কৈলাসের

নিউজ ডেস্ক: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গতকাল শুক্রবার পশ্চিমবঙ্গে ১লা জানুয়ারি থেকে পে কমিশনের সুপারিশ লাগু করার ঘোষণা করার পরে, বিজেপির পক্ষ থেকে বাংলায় ক্ষমতায় এলে সপ্তম বেতন কমিশনের সুপারিশ চালু করার প্রতিশ্রুতি দিলেন বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়।

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী শুক্রবার বিকেলেই রাজ্য সরকারী কর্মচারীদের কনভেনশনে ঘোষণা করেছেন, ষষ্ঠ বেতন কমিশন যা সুপারিশ করবে তা তিনি মেনে নেবেন। সেইসঙ্গে নয়া বর্ধিত বেতনক্রমেরও ঘোষণা করেছেন। সেই ইস্যুতেই এক কদম এগিয়ে এবার মমতাকে কটাক্ষ করে এই আশ্বাস দিলেন কৈলাস।

প্রসঙ্গত, দীর্ঘদিন ধরে রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের ষষ্ঠ বেতন কমিশন আটকে ছিল। শুক্রবার নেতাজি উন্ডোর স্টেডিয়ামে কর্মচারী সংগঠনের সভায় এসে ষষ্ঠ বেতন কমিশনের প্রথম অংশের সুপারিশ জমা পড়ার কথা জানান মুখ্যমন্ত্রী।

সেইসঙ্গে ঘোষণা করেন, আগামী বছরের শুরুতেই বাড়তে চলেছে ন্যূনতম বেসিক পে। সেই ঘোষণাকেই কটাক্ষ করে শুক্রবার সন্ধেয় দমদম বিমানবন্দরে দাঁড়িয়ে বঙ্গ বিজেপির দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা কৈলাস বলেন, ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্য সরকারি কর্মীদের শোষন করছেন।

তিনি বলেন- মধ্যপ্রদেশ থেকে রাজস্থান, সর্বত্র সপ্তম বেতন কমিশনের সুপারিশ অনুযায়ী কর্মচারীরা বেতন পাচ্ছেন। কিন্তু এখনও পশ্চিমবঙ্গে কর্মচারীদের সঙ্গে অন্যায়-অবিচার হচ্ছে।’

তিনি আশ্বাস দেন, বাংলায় বিজেপি ক্ষমতায় এলে সপ্তম বেতন কমিশন গঠন করবে সরকার। সেই সুপারিশ অনুযায়ী তখন বেতন কাঠামো তৈরি করা হবে।

প্রসঙ্গত, পুজোর আগে সরকারি কর্মচারীদের জন্য ভাল খবর দেন মুখ্যমন্ত্রী। ষষ্ঠ বেতন কমিশনের সুপারিশ মেনে ন্যূনতম বেসিক পে-র অঙ্ক বৃদ্ধির ঘোষণা করেন তিনি, যা বেড়ে দাঁড়াল ১৭০০০ টাকা।

আগে এই বেসিক পে ছিল ৭ হাজার টাকা। গ্র্যাচুইটির অঙ্ক ৬ লক্ষ থেকে বেড়ে ১০ লক্ষ টাকা হচ্ছে। শুক্রবার নেতাজি ইন্ডোরে এই ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী। আগামী বছরের পয়লা জানুয়ারি থেকে কার্যকর হচ্ছে নতুন বেতন কাঠামো।