কেন্দ্রের এই নতুন প্রকল্পের মাধ্যমে ৮ লক্ষ যুবক-যুবতীকে প্রশিক্ষণ দিয়ে কাজের সুযোগ, জেনেনিন বিস্তারিত

ইউবিজি ওয়েবডেস্ক: দেশের ৭১৭টি জেলায় আট লক্ষ যুবক-যুবতীকে প্রশিক্ষণের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে শুরু হয়েছে ‘প্রধানমন্ত্রী কৌশল বিকাশ যোজনা ৩.০’।

প্রধানমন্ত্রী কৌশল বিকাশ যোজনা (PMKVY) ভারত সরকারের একটি প্রকল্প, যা ২০১৫ সালের জুলাই মাসে চালু হয়েছিল। এই স্কিমের উদ্দেশ্য হল অল্প শিক্ষিত বা যাঁরা মাঝপথে স্কুল ছেড়েছেন, তাঁদের প্রশিক্ষণ দিয়ে কর্মসংস্থানের সুযোগ করে দেওয়া।

এই স্কিমটি তিন মাস, ছ’মাস এবং এক বছরের জন্য রেজিস্ট্রেশন করা হয়। কোর্স শেষ করার পরে একটি শংসাপত্র দেওয়া হয়, যা পুরো দেশে স্বীকৃতি পায়।
প্রধানমন্ত্রীর কৌশল বিকাশ যোজনার আওতায় ২০২২ সালের মধ্যে দেশে প্রায় ৪০ কোটি যুবক-যুবতীকে প্রশিক্ষণের দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।প্রশিক্ষণের পরে স্ব-কর্মসংস্থানের জন্য ঋণ পাওয়ারও সুবিধা রয়েছে।

পিএমকেভিওয়াই ৩.০ কী?

এই প্রকল্পের তৃতীয় পর্ব শুরু হয়েছে। পিএমকেভিওয়াই ৩.০ (২০২০-২১)-এ আট লক্ষ যুবকে প্রশিক্ষণ দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। যার জন্য ব্যয় হবে ৯৪৮.৯০ কোটি টাকা। দক্ষতা উন্নয়ন ও উদ্যোক্তা মন্ত্রক বিবৃতিতে বলেছে, ২ টি রাজ্য এবং আটটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের ৭১৭ জেলায় পিএমকেভিওয়াই ৩.০ শুরু করা হয়েছে।

রেজিস্ট্রেশন কী ভাবে করাবেন?

প্রধানমন্ত্রীর কৌশল বিকাশ যোজনা (পিএমকেভিওয়াই)-র সুবিধা নিতে আবেদনকারীকে নিজের নাম রেজিস্ট্রেশন করাতে হবে। এর জন্য https://pmkvyofficial.org-এ গিয়ে আপনার নাম, ঠিকানা এবং ইমেল তথ্য পূরণ করতে হবে।
আবেদনপত্র পূরণ করার পরে আপনি যে কোর্সে প্রশিক্ষণ নিতে চান, তা বেছে নিতে হবে।

পিএমকেভিওয়াই ৪০টি টেকনিক্যাল কোর্স যেমন কনস্ট্রাকশন, ইলেকট্রনিক্স এবং হার্ডওয়্যার, ফুড প্রসেসিং, ফার্নিচার এবং ফিটিং, হ্যান্ডিক্র্যাফট, রত্ন ও জুয়েলারি এবং চামড়া প্রযুক্তি-সহ তালিকাভুক্ত যে কোনো একটি কোর্স বেছে নিতে হবে।

এই তথ্য পূরণ করার পরে, একটি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র নির্বাচন করতে হবে।এক নজরে পিএমকেভিওয়াই
এই প্রকল্পে প্রশিক্ষণ নেওয়ার জন্য কোনো ফি দিতে হয় না।সরকারি ভাবে প্রায় ৮ হাজার টাকা পর্যন্ত পুরস্কার রয়েছে।

এখানে ৩ মাস, ৬ মাস এবং এক বছরের জন্য রেজিস্ট্রেশনের সুযোগ রয়েছে। কোর্স শেষ করার পর সার্টিফিকেট দেওয়া হবে। এই শংসাপত্রটি পুরো দেশে মান্যতা পায়। প্রশিক্ষণের পরে, সরকার আর্থিক সহায়তা দেওয়ার পাশাপাশি চাকরি পেতেও সহায়তা করে।