Ad
দেশ

মাত্র ২৫ মিনিটে তালপাতায় বানালেন ‘দিদি’র ক্ষুদ্রতম চোখ ধাঁধানো ছবি, ইন্ডিয়ান বুক অব রেকর্ডসে নাম তুললেন এই শিল্পী

এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর রয়েছে

ইউবিজি নিউজ ডেস্ক : মাত্র ২৫ মিনিটে তাল পাতার উপর ‘দিদি’র ক্ষুদ্রতম ছবি এঁকে ইন্ডিয়ান বুক অব রেকর্ডসে নাম তুললেন মলয় ঘোষ।

এই প্রথম নয়, গতবছরই আইসক্রিমের কাঠির ওপর তিন-তিন জন মনীষীর ছবি এঁকে ইন্টারন্যাশনাল বুক অব রেকর্ডসের অধিকারী হয়েছেন তারকেশ্বরের প্রতিভাবান এই চিত্রশিল্পী।

Ad

তারকেশ্বর পৌরসভার ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা মলয়বাবু পেশায় অঙ্কন শিক্ষক, ছোট থেকেই দারিদ্রতার সঙ্গে লড়াই। তার মধ্যেও পড়াশোনার সঙ্গে সঙ্গেই চালিয়েছেন আঁকাঝোঁকা। হয়েছে একাধিক প্রদর্শনী, পেয়েছেন প্রচুর পুরস্কার ও সম্মান। আর এবার তো একেবারে অসাধ্য সাধন করেছেন।

৬.০২/২.০৭ সেন্টিমিটার মাপের একটি তালপাতায় মাত্র ২৫ মিনিটে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যের রঙিন ছবি এঁকেছেন মলয়। নিয়ম অনুযায়ী ছবি আঁকার পর্বটি প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত ভিডিও করে পাঠাতে হয় সংস্থায়, এক মাসে দু’বার সংস্থা দপ্তরে ছবি পাঠিয়ে বিফল হয়েছেন তিনি। তৃতীয় চেষ্টায় অবশেষে এলো এই সাফল্য।

তবে আক্ষেপেও রয়েছে শিল্পীর। এখনো পর্যন্ত সরকারি প্রকল্পের বাড়ি পাননি তিনি, নাম নেই শিল্পী ভাতার তালিকাতেও, বহুবার চেষ্টা করেও বিফল হয়েছেন মলয় ঘোষ। আগামীতে সরকারি প্রকল্পের বাড়ি পেলে সেখানে একটি স্কুল তৈরি, দুস্থ ছাত্র-ছাত্রীদের বিনামূল্যে ছবি আঁকা শেখানোর ইচ্ছে রয়েছে তাঁর। তাঁর হাতের কাজ দেখে মুখ্যমন্ত্রী শিল্পীকে সরকারি বাড়ি তৈরি দেবে বলে আশাবাদী মলয়।

সাফল্যের খবর চাউর হতেই শিল্পী মলয়ের বাড়িতে যান তারকেশ্বর টাউন তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি উত্তম ভান্ডারী, টাউন যুব তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি অনুপ পণ্ডিত, বর্তমান পৌর প্রশাসক স্বপন সামন্ , প্রাক্তন কাউন্সিলর মহঃ ন‌ঈম, পুতুল ভট্টাচার্য্য সহ অন্যান্যরা। পুষ্পস্তবক দিয়ে সকলেই শিল্পীকে সম্মান জানান। পৌর প্রশাসক স্বপন সামন্ত বলেন, “মলয় ঘোষ শুধু আমাদের এলাকার নয়, দেশজুড়ে সমগ্র বাংলার নাম উচুঁ করেছে। তাঁর এই কাজে আমরা সকলেই গর্বিত, আগামী দিনে তাকে একটি আবাসন প্রকল্পের বাড়ি এবং শিল্পী ভাতার ব্যবস্থা করার যথাসাধ্য চেষ্টা করব।”

আরও পড়ুন