Ad
দেশ

করোনা বিধি মাথায় রেখে কীভাবে হবে নির্বাচন,গাইডলাইন প্রকাশ কমিশনের

এই বিজ্ঞাপনের পরে আরও খবর রয়েছে

UBG NEWS, ডেস্ক : করোনা আতঙ্কে জেরবার গোটা বিশ্ব। ব্যতিক্রম নয় ভারত। দৈনিক সংক্রমণের নিরিখে লাগাতার ৫০ দিন বিশ্ব শীর্ষস্থান দখল করে রেখেছে ভারত। তবে করোনা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক হয়ে উঠলেও নিউ নর্মালে বিহার ভোটের নির্ঘণ্ট প্রকাশ করল জাতীয় নির্বাচন কমিশন।

আজ সাংবাদিক বৈঠক করে ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণা করা হয়। করোনা বিধি মাথায় রেখে কীভাবে হবে নির্বাচন, তার গাইলনও প্রকাশ করেছে কমিশন।

Ad

বিহার বিধানসভার মেয়াদ শেষ হবে ২২ নভেম্বর। করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে হ্যান্ড স্যানিটাইজার, মাস্ক, পিপিই কিট, গ্লোভস বিলি করা হবে বলে জানিয়েছেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরা। ভোটারদের স্বাস্থ্য ও সুরক্ষা কথা মাথায় রেখে সমস্ত পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

কোভিড রোগীদের জন্য পৃথক ভোটদান কেন্দ্র করা হবে বলেও জানানো হয়েছে। করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে ভোট দেওয়ার সময় ১ ঘণ্টা বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। সকাল ৭টা থেকে ৬টা পর্যন্ত ভোটদান চলতে পারে। আগে বিকেল ৫টা পর্যন্ত ভোটদান চলত। তবে, তা মাও অধ্যুষিত এলাকার জন্য কার্যকর হবে না বলেও জানিয়েছেন তিনি।

এবারের বিহার বিধানসভা নির্বাচনে বেশ কিছু করোনা সতর্কতা জারি করা হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে ভোট পরিচালোনার জন্য ৭ লক্ষ হ্যান্ড স্যানিটাইজার, ৬ লক্ষ্য পিপিই কিট, ৬.৭ ইউনিট ফেস শিল্ড, ২৩ লক্ষ হ্যান্ড গ্লাভস, ভোটারদের জন্য ৭.২ কোটি হ্যান্ড গ্লাভস ব্যবস্থা করা হবে বলেও জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনার।

কোয়ারান্টিনে থাকা ভোটাররা স্বাস্থ্যকর্মীদের নজরদারিতে শেষদিনে ভোট দিতে পারবেন। এদিন নির্বাচন কমিশনার জানান, মোট তিন দফায় হবে নির্বাচন। ২৪৩ আসনে মোট ৩ দফায় ভোট হবে। প্রথম দফায় ৭১টি আসনে ভোট হবে। দ্বিতীয় দফায় ৯৪টি আসন ও শেষ দফায় ৭৮টি আসনে ভোট হবে। ২৮ অক্টোবর হবে প্রথম দফার নির্বাচন। দ্বিতীয় দফায় ৩ নভেম্বর ভোট হবে। শেষ দফার ভোট হবে ৭ নভেম্বর। ১০ নভেম্বর বিহার নির্বাচনের ফল ঘোষণা। ওই দিন নীতীশ কুমারের ভাগ্যনির্ধারণ করবেন বিহারের জনতা।

এবারের বিহার বিধানসভা ভোটে মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমারের নেতৃত্বেই জেডিইউ, এলজেপি ও বিজেপি জোট বেঁধে লড়বে। বিহার বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে আলোচনায় ইতিমধ্যেই একথা বৈঠকে স্পষ্ট জানিয়েছেন বিজেপি সভাপতি জেপি নাড্ডা।

এনডিএতে থাকা অবস্থাতেও ঝাড়খণ্ড ভোটে আলাদা ভাবেই লড়েছিল এলজেপি। সম্প্রতি মুখ্যমন্ত্রী তথা জেডিইউ নেতা নীতীশ কুমারের সঙ্গে লোকজনশক্তি দলের নেতা চিরাগ পাসোয়ানের টুইটারে মতবিরোধ দেখা যায়।

এরপরেই আসন্ন নির্বাচনে এই তিন দল জোট বেঁধে লড়বে কিনা তা নিয়ে ধোঁয়াশা তৈরি হয় রাজনৈতিক মহলে। রবিবার ভার্চুয়াল বৈঠকে জেপি নাড্ডার বক্তব্য থেকে স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে, বিহার ভোটে জোট বাঁধতে চলেছে বিজেপি, জেডিইউ ও এলজেপি।

আরও পড়ুন