বিধানসভা ভোটে মুখ থুবড়ে পড়েছে বঙ্গ বিজেপি! দলের বৈঠকে অনুপস্থিতি নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য মুকুলের

কলকাতা ৮ জুনঃ বিধানসভা ভোটে মুখ থুবড়ে পড়েছে বঙ্গ বিজেপি! দলের বৈঠকে অনুপস্থিতি নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন রাজ্য বিজেপি অন্যতম শীর্ষ নেতা তথা কৃষ্ণনগর উত্তরের বিধায়ক মুকুল রায়।তিনি বলেন, মঙ্গলবারের বৈঠকে তাঁকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি৷ সেই কারণেই বৈঠকে যাননি। যা ঘিরে নতুন করে তুমুল জল্পনা সৃষ্টি হল৷

কলকাতার হেস্টিংস অফিসে রাজ্য বিজেপির গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক ছিল। সেই বৈঠকে দিলীপ ঘোষ-সহ একাধিক রাজ্য নেতা উপস্থিত ছিলেন। এদিন বৈঠকে ছিলেন না মুকুল রায়৷ যা ঘিরে তুমুল জল্পনা শুরু হয়৷ রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘‘বৈঠকের সূচনা সবাইকেই দেওয়া হয়েছে। যতদূর জানি, উনি বলেছিলেন, সময় পেলে আসব। ‘‘ কিন্তু মুকুলের বক্তব্য, ‘‘আমাকে কেউ বৈঠকের বিষয়ে জানাননি। আমি এখন এ সবের মধ্যে নেই। নিজের যন্ত্রণায় জ্বলছি।’’

বেশকিছু দিন থেকে গুরুতর অসুস্থ মুকুলের স্ত্রী। তিনি ভেন্টিলেশনে রয়েছেন । কিছু দিন আগে করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন মুকুল নিজেও। দিলীপের বৈঠকে সশরীরে উপস্থিত হওয়ার নির্দেশ ছিল। মুকুলের ঘনিষ্ঠবৃত্তের দাবি, ভিড় এড়িয়ে গিয়েছেন কৃষ্ণনগর উত্তরের বিধায়ক। যদিও, মঙ্গলবার দিলীপের বৈঠকে মুকুলের অনুপস্থিতি নিয়ে জল্পনা জোরদার হয়েছে।

২ মে-র পর দিলীপ ঘোষের ডাকে বিজেপির যে ক’টি ভার্চুয়াল বৈঠক এখন পর্যন্ত হয়েছে, তার একটিতেও দেখা যায়নি মুকুলকে। তাছাড়া কয়েকদিন আগেই, পুরোনো দল তৃণমূল কংগ্রেসকে নিয়ে বিজেপির আচরণের তীব্র সমালোচনা করেছেন মুকুল রায়ের  পুত্র শুভ্রাংশু রায় ৷

বীজপুরের প্রাক্তন বিধায়ক শুভ্রাংশু রায়ের একটি বিস্ফোরক ফেসবুক পোস্ট ঘিরে রাজ্য-রাজনীতিতে চর্চা শুরু হয়েছে। ওই পোস্টে বিজেপিকে আত্মসমালোচনার পরামর্শ দিয়েছেন শুভ্রাংশু৷ শুধু তাই নয়, মুকুল রায়ের করোনা আক্রান্ত স্ত্রীকে হাসপাতালে দেখতে গিয়েছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়৷ এরপরই রাজনৈতিক মহলের কেউ কেউ অন্যরকম গন্ধ পাচ্ছেন৷

মুকুল রায় ছাড়াও  এদিন তাঁর পুত্র শুভ্রাংশুও ছিলেন না ওই বৈঠকে। ছিলেন না বিধাননগরের প্রাক্তন মেয়র তথা মুকুল রায়ের ঘনিষ্ট সব্যসাচী দত্তও৷ বৈঠকে যোগ দেননি রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ও। রাজীবের ঘনিষ্ঠমহল সূত্রে জানা গিয়েছে, আত্মীয়তার অসুস্থতার কারণে তিনি ওই বৈঠতে যেতে পারেননি।