একাধিক ID কার্ড নয়, এ বার ‘এক দেশ, এক পরিচয়পত্র’ চান অমিত শাহ

নয়াদিল্লি: এক দেশ, এক দল.. এক দেশ, এক ভাষার পর এবার এক দেশ, এক পরিচয় পত্রের ইচ্ছাপ্রকাশ করলেন অমিত শাহ। আধার কার্ড, পাসপোর্ট, ড্রাইভিং লাইসেন্স, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট সহ একজন নাগরিকের একাধিক পরিচয় পত্র তুলে দিয়ে এ বার ‘এক দেশ, এক পরিচয়পত্র’-এর পক্ষে সওয়াল করলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ৷ দেশের আগামী জনগণনা হবে ডিজিটাল পদ্ধতিতে বা ‘ডিজিটাল সেনসাস’। পাশাপাশি, তৈরি করা হবে ন্যাশানাল পপুলেশন রেজিস্টার বা এনপিআর। এমনটাই জানালেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

এদিন তিনি বলেন, “আধার কার্ড, পাসপোর্ট, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট, ড্রাইভিং লাইসেন্স, ভোটার কার্ড – এতগুলি পরিচয়পত্রের বদলে একটিই পরিচয়পত্র থাকলে কেমন হয়? একটি কার্ডেই একজন নাগরিকের পরিচিতি থাকবে, এরকম ব্যবস্থা করা উচিত৷ সেই কারণেই ডিজিটাল সেন্সাস গুরুত্বপূর্ণ৷”

সোমবার দিল্লিতে এই একই অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, “২০২১ সালের জনগণনায় ব্যবহার করা হবে একটি মোবাইল অ্যাপ। এতে কাগজে কলমে জনগণনা পদ্ধতি বদলে যাবে ডিজিটালে।”২০১১ সালে শেষবার জনগণনা হয়েছিল। দশ বছর পর এবার তা হবে ২০২১ সালে। এর জন্য খরচ হবে মোট ১২,০০০ কোটি টাকা। ২০২১ সালের জনগণনায় তৈরি করা হবে এনপিআর বা ন্যাশনাল পপুলেশন রেজিস্টারও। এতে যাঁরা জনগণনার তথ্য সংগ্রহ করবেন তাঁরা মোবাইল অ্যাপের ফলে উত্সাহ পাবেন। এমনটাই জানান অমিত শাহ।

উল্লেখ্য, এ বছর মার্চ মাসে কেন্দ্র ঘোষণা করে পরবর্তী জনগণনা হবে দু’টি ধাপে। একটি শুরু হবে ১ মার্চ ২০২১ থেকে। এর জন্য নোটিশ দেওয়া হবে ২০২০ সালের অক্টোবরে।